আন্তর্জাতিক

রোহিঙ্গাদের সমর্থনে লাখ লাখ লোকের বিক্ষোভ হঠাৎ যে কারণে থামাতে বললেন রমজান কাদিরভ

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের উপর দমন-পীড়ন শুরু হলে বিক্ষোভে ফেটে পড়েছিলো চেচনিয়ার কয়েক লাখ নাগরিক। মুসলিম অধ্যুষিত চেচনিয়ার নেতা রমজান কাদিরভ রাজধানী গ্রজনিতে অনুষ্ঠিত ওই বিক্ষোভের নেতৃত্ব দেন। সারা বিশ্বেই আলোড়ন তুলে চেচনিয়ার মানুষের ওই ধর্মীয় ভাতৃত্ববোধ।

তবে, গতকাল (সোমবার) হঠাৎ করেই গ্রজনি শহরে রোহিঙ্গাদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে কোন বিক্ষোভ প্রদর্শন না করার নির্দেশ দেন কাদিরভ।

নিজের ইন্টাগ্রাম একাউন্ট থেকে এক বার্তায় কাদিরভ বলেন, ‘এই মহুর্তে মিছিলের কোন প্রয়োজন নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের সমস্যাটি বর্তমানে বিশ্বের এক নম্বর সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।’

কারো মতে, রোববার রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে রোহিঙ্গাদের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল থেকে ১৩০ জনকে গ্রেফতার করার পর এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কাদিরভ। গত সপ্তাহেও মস্কোতে মিয়ানমার দূতাবাসের সামনে থেকে একই কারণে অন্তত ২০ জনকে আটক করা হয়।

গত সপ্তাহে চেচনিয়ার গ্রজনিতে লাখো মুসলিমকে রোহিঙ্গাদের সমর্থনে বিক্ষোভ করতে অনুপ্রাণীত করেন কাদিরভ। এ প্রসঙ্গে ইনস্টাগ্রাম বার্তায় তিনি বলেন, ‘আমাদের বিক্ষোভকারীদের আওয়াজ পৃথিবীর কোনায় কোনায় পৌঁছে গেছে।’

সে সময় কাদিরভ বলেছিলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে রাশিয়া যদি রোহিঙ্গাদের পক্ষ অবলম্বণ না করে তবে তিনি রাশিয়ারও বিরোধীতা করবেন।
উল্লেখ্য, চেচনিয়ার মুসলিম নেতা রমাজান কাদিরভ রাশিয়ার পুতিন সরকারের বিশেষ অনুগত বলে সর্ব মহলেই চিহ্নিত।-দ্য মস্কো টাইমস