বিনোদন

বাচ্চা দুটো মেয়ে স্কুলে গিয়ে বিব্রত হচ্ছে : মোস্তাক

ঢাকাই ছবির অমর নায়ক সালমান শাহ। তার রহস্যজনক মৃত্যু নতুন করে আলোচনায় এসেছে রাবেয়া সুলতানা রুবি নামের এক আমেরিকা প্রবাসীর ভিডিও বার্তার হাত ধরে। সেই ভিডিওতে তিনি দাবি করেন, সামিরা ও তার পরিবার সালমান শাহকে খুন করেছে। এই খুনের সঙ্গে রুবির স্বামীও জড়িত বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এই ভিডিও নিয়ে তোলপাড় চলছে সারাদেশে। এরইমধ্যে বাংলাদেশ পুলিশের পক্ষ থেকে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তবে গেল দুইদিনে আরও কিছু স্ট্যাটাস ও ভিডিও বার্তা দিয়ে তিনি দ্বিধা দ্বন্দ্ব বাড়িয়ে দিয়েছেন। একেকবার বলছেন একেক কথা।

গেল সোমবার প্রকাশ করা ভিডিওতে তিনি সালমান শাহ খুন হয়েছেন জোর গলায় দাবি করলেও আজ বুধবার সকালে প্রকাশ হওয়া ভিডিওতে এটি আত্মহত্যা না খুন সে প্রসঙ্গে নিজেই সন্দেহ প্রকাশ করেছেন।

সর্বশেষ আজ বুধবার দুপুরে একটি ভিডিও প্রকাশ করে তিনি সালমানের সাবেক স্ত্রী সামিরাকে নিয়ে গালিগালাজ করেন। এই ভিডিও নিয়ে মতামত জানতে চাইলে সামিরার স্বামী মোস্তাক ওয়াইজ  বলেন, ‘এই মহিলা কখন যে কী বলছেন তার কোনো ঠিক ঠিকানা পাওয়া যাচ্ছে না। সবকিছু বিবেচনা করে মনে হচ্ছে তিনি আমার স্ত্রী সামিরা ও তার পরিবারের উপর ব্যক্তি আক্রোশ দেখাচ্ছেন। কোনো রকম যুক্তি ছাড়াই তিনি মনগড়া কথা বলে দেশের মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন।

সালমান শাহ এই দেশের কোটি মানুষের কাছে এখনও জনপ্রিয় নাম। প্রিয় নায়কের জন্য এখনও অনেকের মনে অন্য রকম আবেগ কাজ করে। এইসব ভুল তথ্য ছড়িয়ে সেইসব ভক্তদের উস্কে দেয়া হচ্ছে। তাদের কেউ যদি ক্ষোভ নিয়ে আমাদের কোনো ক্ষতি করে বসে তার দায় কে নেবে? এই রুবি কী নেবেন?’

তিনি আরও বলেন, ‘তার আজগুবি কথাবার্তায় বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছি আমি ও আমার পরিবার। আমার দুই মেয়ে ঢাকায় একটি স্বনামধন্য স্কুলে পড়ে। তারা স্কুলে গিয়ে বিব্রত হচ্ছে। তারা বাইরে কোথাও যেতে পারছে না। লোকে তাদের খুনীর সন্তান বলছে। তাদেরকে বাজে বাজে গালি দেয়া হচ্ছে। বাচ্চা দুটো মেয়ে কী রকম সময় পার করছে বলে বুঝানো যাবে না। একই অবস্থা আমার ও সামিরার। সামিরা তো কোথাও যাচ্ছে না, কোনো কথাও বলছে না। আর আমাকে পরশুদিন থেকেই নানা প্রশ্নের উত্তর দিয়ে যেতে হচ্ছে সবখানে।’

মোস্তাক আরও বলেন, ‘কেন তিনি ২১ বছর পর এসে একটি মরা বিষয়কে উস্কে দিলেন সেটি আসলে খতিয়ে দেখা উচিত। ইমন (সালমান শাহ) আমার অত্যন্ত কাছের বন্ধু ছিলো। তার সঙ্গে সম্পর্কের শ্রদ্ধাবোধ থেকেই আমি সামিরাকে বিয়ে করেছি, সামিরার অমতে। সামিরা ও আমার পরিবার এই বিয়ে করিয়েছে। সেখানে আমার আগ্রহ থাকলেও সামিরা রাজি ছিলো না আমি ইমনের বন্ধু বলে। তার কথা ছিলো, সে ইমনকে ভালোবাসতো। তাকে ভুলে তারই বন্ধুকে বিয়ে করার ইচ্ছে তার ছিলো না।

দুই পরিবারের ইচ্ছেতে এবং ইমনের প্রতি আমার ভালোবাসা দেখেই সে আমাকে বিয়ে করতে রাজি হয়। দীর্ঘদিন আমি তার সঙ্গে সংসার করেছি। এইসব কোনো বাজে বিষয়ের সঙ্গে ও জড়িত থাকলে আমি অবশ্যই টের পেতাম। কেউ খুনীর সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে চায় না। আমাকে যারা ব্যক্তিগতভাবে চেনেন তারা জানেন আমি কেমন ছেলে। সত্যি, খুব বিব্রতকর সময় পার করছি।’

সামিরার স্বামীর দাবি, রুবি ভিডিওতে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে চলেছেন সামিরা ও তার পরিবারকে। কোনো সুস্থ মষ্তিষ্কের মানুষ এমনটি করতে পারেন না। কেউ হয়তো পেছনে থেকে রুবিকে পরিচালনা করছেন বা প্রভাবিত করছেন বলেও মন্তব্য করেন মোস্তাক ওয়াইজ।



সর্বশেষ খবর