খেলা-ধুলা

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে দল পেলেন না যারা

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) পঞ্চম আসরের প্লেয়ার্স ড্রাফটে কোনো দল পাননি নাঈম ইসলাম। আগের দিন জাতীয় লিগে দারুণ এক সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন তিনি। খুব ধারাবাহিক ব্যাটে। শুধু তাই নয় গত আসরে রংপুর রাইডার্সের অধিনায়কই ছিলেন নাঈম। এবার সেই তিনিই নেই কোনো দলে। তার সঙ্গে এবারের বিপিএলে দেখা যাবেনা জুবায়ের হোসেন লিখন, জুনায়েদ সিদ্দিকি, শাহাদাৎ হোসেন রাজীব, এনামুল হক জুনিয়র, সোহরাওয়ার্দি শুভ ও শামসুর রহমান শুভর মতো খেলোয়াড়দেরও।

বাংলাদেশ জাতীয় দলে টি-টুয়েন্টি স্পেশালিষ্ট হিসেবে জায়গা পেয়েছিলেন জুনায়েদ সিদ্দিকি। গত আসরেও শুরুতে জায়গা হয়নি তার। তবে মাঝপথে তাকে দলে নেয় রাজশাহী কিংস। একজনের ইনজুরিতে। শামসুর রহমান শুভর উত্থানও প্রথম বিপিএল দিয়ে। সেবার ভালো খেলেই জাতীয় দলে জায়গা পেয়েছিলেন তিনি। এবার জায়গা হয়নি এই ব্যাটসম্যানেরও। নেই ‘ছক্কা মিলন’ নামে পরিচিত নাজমুল হোসেন মিলনও। দল পাননি জাতীয় দলের লেগস্পিনার জুবায়ের হোসেন লিখনেরও। যদিও তৃতীয় আসরেও কোনো দল পাননি এ স্পিনার।

গত অনূর্ধ্ব-১৯ দলের দুই স্পিনার সালেহ আহমেদ শাওন গাজী ও সঞ্জিত সাহাও পাননি দল। তাদের সতীর্থ, আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান পিনাক ঘোষও থেকেছেন অবাঞ্ছিত। গত আসরে কুমিল্লার হয়ে খেললেও এবার শাহাদাৎ হোসেন রাজীবের উপর আগ্রহ দেখায়নি কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। স্থানীয় দল খুলনা টাইটান্সে ছিলেন মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান। এবার তার প্রতি সদয় হয়নি দলটি।

বিপিএলে এবার দেখা যাবে না এমন উল্লেখ্যযোগ্য খেলোয়াড়ের তালিকাঃ
এনামুল হক জুনিয়র, নাঈম ইসলাম, সোহরাওয়ার্দি শুভ, জুবায়ের হোসেন লিখন, জুনায়েদ সিদ্দিকি, শাহাদাৎ হোসেন রাজীব, শামসুর রহমান শুভ, আসিফ আহমেদ রাতুল, মনির হোসেন খান, নাজমুল হোসেন মিলন, তুষার ইমরান, ডলার মাহমুদ, মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান, পিনাক ঘোষ, রাসেল আল মামুন, সালেহ আহমেদ শাওন গাজী, সঞ্জিত সাহা।