আন্তর্জাতিক

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে কাতারের এ কেমন সিদ্ধান্ত!

মধ্য প্রাচ্যের দেশ কাতারের উপর সৌদি আরবসহ বেশ কয়েকটি দেশের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।  এরমধ্যে চমক স্বরুপ দিল এক ঘোষণা।

বিশ্বের ৮০টি দেশের নাগরিক কাতারে ভিসামুক্ত প্রবেশ করতে পারবে।    দেশগুলোর অর্থনৈতিক অবস্থা ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ওপর ভিত্তিকের এই ভ্রমণ ভিসার মেয়াদকাল নির্ধারণ করা হয়েছে।

সন্ত্রাসবাদীদের মদত দেওয়ার অভি‌যোগ তুলে কাতারের উপর অবরোধ আরোপকারী সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের কোনো দেশও এই তালিকায় ঠাঁই পায়নি।

আর এতে তালিকায় নাম নেই বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের।  কারণ বাংলাদেশ সৌদি জোটের সদস্য।

বাংলাদেশের মতো একটি শান্তিপ্রিয় মানুষের দেশের নাগরিকদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়নি কাতারে।  এ দেশের মানুষের প্রতি বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখাল কাতার।

বুধবার কাতারের পর্যটন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা হাসান আল-ইব্রাহিম দোহায় এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান।  এর মধ্যদিয়ে উপসাগরীয় অঞ্চলে কাতার সবচেয়ে উদার দেশে পরিণত হয়েছে।

এদিকে দেশটির প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, প‌র্যটনকে উৎসাহ দিতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

সংবাদ সম্মেলনে এমন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাশেদ আল মাজরুই বলেন, এই ৮০টি দেশের নাগরিকরা দোহায় পৌঁছে বৈধ পাসপোর্ট দেখালেই কাতারে প্রবেশাধিকার পাবেন।  ২০২২ সালে ফুটবল বিশ্বকাপের আয়োজন করছে কাতার।  তার আগে দেশটির এমন সিদ্ধান্ত তাদের পর্যটন শিল্পকে আরো ছড়িয়ে দিবে।  এই সিদ্ধান্তের ফলে কাতারে ইউরোপ, আমেরিকা এবং এশিয়ান দেশগুলোর প‌র্যটকদের জোয়ার আসবে বলেও দাবি করেন মাজরুই।

কাতারের ভিসামুক্ত দেশগুলোর তালিকায় রয়েছে অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, ফ্রান্স, তুরস্কো, সুইজারল্যান্ড, ডেনমার্কসহ ৩৩টি দেশের নাগরিকরা।  তারা ১৮০ দিন কাতারে থাকার অনুমতি পাবেন।  বাকি ৪৭টি দেশের নাগরিকরা ৩০ দিন থাকার অনুমতি পাবেন।  তাদের মধ্যে ভারত, ইন্দোনেশিয়া, জাপানে মত দেশ রয়েছে।  তবে তারা চাইলে ভিসা নবায়ন করতেও পারবেন।