জাতীয়

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ, ১ নম্বর সতর্ক সংকেত

fবঙ্গোপসাগরে আবারও নিম্নচাপের সৃষ্টি হয়েছে। এটি শক্তি সঞ্চয় করে গভীর নিম্নচাপে রূপ নিতে পারে যার কারণে সমুদ্রবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

বুধবার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে আবহাওয়া অধিদফতার এ তথ্য জানায়।

তবে নিম্নচাপটি বেশ দূরে থাকায় আগামী ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে আবহাওয়ার ওপর এর কোনো প্রভাব পড়বে না বলে জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ। এ সময়ে সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্কই থাকবে।

বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল তেতুলিয়ায় ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়া অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি বুধবার সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৪৮৫ কি.মি. দক্ষিণে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৪০৫ কি.মি. দক্ষিণে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৫১০ কি.মি. দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৪৫৫ কি.মি. দক্ষিণে অবস্থান করছিল।

এটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদফতর আরও জানিয়েছে, নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৪০ কি.মি. যা দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৫০ কি.মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের কাছাকাছি এলাকায় সাগর উত্তাল রয়েছে।

যে কারণে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে গভীর সাগরে বিচরণ করতে নিষেধ করা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, প্রাকৃতিক নানা কারণে সমুদ্রের একটি অঞ্চলে কেন্দ্রাভিমুখী ঝড়ো হাওয়ার অঞ্চল বা লঘুচাপ সৃষ্টি হয়। ক্রমান্বয়ে এ ঝড়ো হাওয়ার অঞ্চলটি শক্তি সঞ্চয় করে (বাতাসের গতি বৃদ্ধি পেয়ে) সুস্পষ্ট লঘুচাপ, নিম্নচাপ, গভীর নিম্নচাপ ও শেষে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়।

আবহাওয়া অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, নিম্নচাপ হচ্ছে একটি ঝোড়ো হাওয়ার অঞ্চল, যেখানে বাতাসের গতিবেগ ৪১ থেকে ৫০ কিলোমিটারের মধ্যে। কোন ঝোড়ো হাওয়ার অঞ্চলে বাতাসের গতিবেগ ৬২ থেকে ৮৮ কিলোমিটারের মধ্যে হলে তাকে বলে ঘূর্ণিঝড়।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট একটি গভীর নিম্নচাপ গত ৬ নভেম্বর সীতাকুন্ডের কাছ দিয়ে চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করে। সর্বশেষ গত ৩০ নভেম্বর বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় ‘নাদা’র সৃষ্টি হয়। তবে এটি দুর্বল হয়ে নিম্নচাপ আকারে ২ ডিসেম্বর ভারতের তামিলনাড়ু উপকূল অতিক্রম করে।

Advertisements

Add Comment

Click here to post a comment