আইন-আদালত খেলা-ধুলা

ফেঁসে যাচ্ছে সানির কথিত স্ত্রী, অভিযোগ পায়নি পুলিশ

ক্রিকেটার আরাফাত সানি ও তার মায়ের বিরুদ্ধে করা নারী নির্যাতনের মামলায় পুলিশের দাখিল করা চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে। এতে সানির বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি বলে পুলিশ উল্লেখ করেছে। বৃহস্পতিবার ঢাকার মহানগর হাকিম জিয়ারুল ইসলামের আদালতে ঢাকার সিএমএম আদালতে জিআর শাখার পুলিশ এ চূড়ান্ত প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করে।

ঢাকার অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের উপকমিশনার আনিসুর রহমান বিষয়টি জানিয়েছেন। তিনি জানান, গত ১৭ আগস্ট ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের সাধারণ নিবন্ধন শাখায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সানির আইনজীবী এম জুয়েল আহমেদ জানান, সানি ও তার মায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি উল্লেখ করে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক মোহাম্মদ ইয়াহহিয়া এ চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন। সে চূড়ান্ত প্রতিবেদন আজ বিচারক দেখেছেন। মামলাটি এখন ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হবে। সেখানে মামলাটি চলেবে কি না, সে বিষয়ে বিচারক রায় দেবেন।

চূড়ান্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, মামলার বাদী ভুল তথ্য দিয়ে মামলাটি করেছেন। তাই আসামিদের অব্যাহতির আবেদন করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। এ ছাড়া আরাফাত সানির সঙ্গে মামলার বাদীর যে বিবাহ ও কাবিন হয়েছে, তার কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি। সানি ও নাসরিনের রেস্তোরাঁয় বিয়ে হয়েছে বলেও কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। সানির মা নার্গিস সুলতানা লোকজনকে নিয়ে মামলার বাদীকে মারধর করেছেন বলে যে অভিযোগ আছে, তারও কোনো সাক্ষ্য-প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

গত ১ ফেব্রুয়ারি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে সানি ও তার মায়ের বিরুদ্ধে মামলা করেন সানির স্ত্রী দাবিদার নাসরিন সুলতানা। এর আগে সানি তথ্যপ্রযুক্তি মামলায় প্রায় এক মাস কারাগারে আটক ছিলেন।