অন্যরকম খবর ভিডিও

পোকা-মাকড় কি মানুষের ভবিষ্যতের খাবার? ( ভিডিও)

1aভবিষ্যতের খাবার হিসেবে অনেকেই পোকা-মাকড়ের কথা তুলে ধরছেন। এর অন্যতম কারণ, সবচেয়ে কম খাবার ও পরিশ্রমে পোকামাকড় উৎপাদন করা যায়। কিন্তু একটি প্রশ্ন ঘুরছিল সবার মনে, এগুলো কি নিরাপদ? সম্প্রতি গবেষকরা জানিয়েছেন, কিছু পোকা আপনি নিরাপদেই খেতে পারেন। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফক্স নিউজ।

শাক-সবজি কিংবা ফলমূল দিয়ে বানানো সালাদ খেতে আমরা অনেকেই অভ্যস্ত হলেও পোকার সালাদ খেতে আগ্রহী মানুষ পাওয়া ভার। কিন্তু এটি যদি আকর্ষণীয়ভাবে উপস্থাপন ও সুস্বাদু করে তৈরি করা যায় তাহলে তার যে সমঝদার পাওয়া যাবে। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের কিংস কলেজ লন্ডন ও চীনের নিংবো ইউনিভার্সিটির গবেষকরা বিভিন্ন পোকামাকড় পরীক্ষা করে তা খাওয়ার জন্য নিরাপদ বলে সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। এছাড়া তারা এক্ষেত্রে পোকামাকড়ের পুষ্টিগুণেরও একটি তালিকা তৈরি করেছেন।

তারা জানান, মাংসের মতোই এটি খাওয়া নিরাপদ। তারা যে পোকাগুলোর ওপর গবেষণা চালিয়েছেন সেগুলো হলো- ঘাস ফড়িং, ঝিঁঝিঁ, মিলওয়ার্ম ও বাফেলো ওয়ার্ম। এ বিষয়ে গবেষণার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে জার্নাল অব এগ্রিকালচার অ্যান্ড ফুড কেমিস্ট্রিতে। বিশ্বের বহু দেশেই পোকামাকড় খাওয়া হয়। বিশ্বের প্রায় দুই বিলিয়ন মানুষ তাদের ঐতিহ্যবাহী খাবারে কোনো না কোনোভাবে পোকামাকড় খেয়ে থাকে বলে জানা গেছে জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) তথ্য থেকে। এ তালিকায় প্রায় ১,৯০০ ধরনের পোকা রয়েছে।

ক্যাথরিনা বলেন, ‘গরুর মাংসের সঙ্গে তুলনা করলে দেখা যাবে পোকা উৎপাদনে সে তুলনায় মাত্র ১০ শতাংশ জায়গার প্রয়োজন হয়। এছাড়া তাদের গরুর তুলনায় এক চতুর্থাংশ খাবার দিলেই চলে।’ তবে মানুষ এখনও পোকামাকড়কে খাবার হিসেবে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হয়নি। এ কারণে বিষয়টি প্রচারণায় ব্যাপক জোর দিচ্ছেন পোকামাকড় উৎপাদনকারীরা। তারা এজন্য মজাদার পোকামাকড়ের রেসিপিও তৈরি করছেন। অস্ট্রেলিয়ান দুজন পোকামাকড় ব্যবসার উদ্যোক্তা হলেন ক্যাথরিনা আনগার ও জুলিয়া কেইসিংগারে। তারা জানিয়েছেন এ পোকার খাবার বিশ্বকে বাঁচাতে পারে। আর এ কারণেই তারা পোকার সালাদ জনপ্রিয় করতে কাজ করছেন। তারা বাড়িতেই বিশেষ প্রজাতির লার্ভার বংশবৃদ্ধির উপায় উন্নয়নের কাজ করছেন। এ কাজে তারা একটি বিশেষ যন্ত্র বানিয়েছেন, যার প্রকোষ্টেই উৎপাদন করা যায় পোকা।

আর এটি আমাদের প্রোটিন চাহিদা মেটাতে খুবই কার্যকর বলে মনে করছেন তারা। বর্তমানে যে যন্ত্রটি তারা ব্যবহার করছেন তা দিয়ে সপ্তাহে ২০০ থেকে ৫০০ গ্রাম পর্যন্ত খাওয়ার উপযোগী পোকা উৎপাদন সম্ভব। এ বিষয়ে একজন উদ্যোক্তা বলেন, ‘আপনি তাদের ফ্রিজে রাখতে পারবেন এবং অন্য মাংসগুলোর মতো করেই রান্না করে খেতে পারবেন। আপনি এগুলো রান্না ছাড়াও রোস্ট করে বার্গার, পেটিস কিংবা পাস্তাতে খেতে পারবেন।’ যে যন্ত্রটিতে এ পোকাগুলো উৎপাদন করা হয় তাতে বেশ কয়েকটি প্রকোষ্ট রয়েছে। সেখানে পোকাগুলোকে তাদের বসবাসের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করা হয় এবং খাবার দেওয়া হয়। প্রথমে এগুলো যন্ত্রের ওপরের স্তরে থাকে। এরপর এগুলো দ্রুত বড় হয় এবং নিচের স্তরে নামানো হয়। সবশেষে এগুলো খাওয়ার উপযোগী হয়ে ওঠে। ভিডিওতে দেখুন এ বিষয়ে আরও তথ্য- এখানে ক্লিক করে ভিডিওটি দেখুন।

 

Advertisements

Add Comment

Click here to post a comment