জাতীয়

পিছিয়ে গেছে প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর

ikচলতি মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্ধারিত ভারত সফর পিছিয়ে গেছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র জানায়, অনিবার্য কারণবশত সফরটি বাংলাদেশের পক্ষ থেকে পিছিয়ে দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পর্যায়ের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা ইউএনবি জানিয়েছে, শেষ মুহুর্তের কিছু পরিবর্তনের জন্য এই সফর পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে সূত্র সফর পেছানোর কারণ ব্যাখ্যা করেনি।

প্রধানমন্ত্রীর ১৮ ডিসেম্বর ভারতের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার কথা ছিল। সফরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক বিষয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। নতুন এই সফর ভারত ও বাংলাদেশ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে নতুন মাত্রা যোগ করবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ-ভারত সাম্প্রতিক সব উচ্চ পর্যায়ের সফরে গুরুত্বপুর্ণ ইস্যু তিস্তা নদীর পানি ভাগাভাগির চুক্তি। এই বিষয়ে দিল্লি ও ঢাকার কোনো কর্মকর্তাই কোনো অগ্রগতির কথা নিশ্চিত করতে পারেননি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, ভারতের সঙ্গে তিস্তা চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে তিনি এখনো আশাবাদী। তিনি শনিবার বলেছিলেন, আমি ভারত সফরে যাচ্ছি। তবে তিস্তা চুক্তির শর্তে যাচ্ছি না, তবে আমরা এই বিষয়ে আশাবাদী।

গত অক্টোবরের ১৬ তারিখ ভারতের গোয়ায় একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনে মোদীর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেই বৈঠকে আশ্বাস দেয়া হয়, উন্নয়নের স্বার্থে বাংলাদেশ-ভারত একসঙ্গেই থাকবে।

২০১৫ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিমন্ত্রণে জুন মাসের ৬-৭ তারিখে বাংলাদেশ সফর করেছিলেন মোদী। সেই সফরে দুই দেশ ‘নতুন প্রজন্ম-নায়ি দিশা’ নামে যৌথ ঘোষণা করে। সেই সফরে মোদীকে ২০১১ সালে দুই সরকারের মধ্যে স্বাক্ষরিত পানি ভাগাভাগি চুক্তি কার্যকরের আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

মোদী তখন বলেছিলেন, তিস্তা ও ফেনী নদীর পানি ভাগাভাগির চুক্তি চূড়ান্ত করার বিষয়ে সবার সঙ্গে আলোচনা চলছে। দুই প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, যৌথ নদী কমিশনের মাধ্যমে মানু, মুহুরি, খোয়াই, গোমতী, ধরলা ও দুধকুমার নদীর পানি ভাগাভাগির চুক্তির টেকনিক্যাল দিকগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Add Comment

Click here to post a comment





সর্বশেষ খবর