খেলা-ধুলা

পারিশ্রমিক পেতে পোশাক খুলল মাঠকর্মীরা, ক্রিকেট বিশ্বে তোলপাড়!

পুরো ওয়ানডে সিরিজে দায়িত্ব পালন করেছেন মাঠকর্মীরা। কিন্তু দায়িত্ব শেষে পারিশ্রামিক বুঝে নিতে গেলেই শুরু হয় বিপত্তি! সবার পরিহিত প্যান্ট খুলে না দিলে বেতন দেওয়া হবে না বলে তাদের সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়। ঘটনাটি ঘটেছে শ্রীলঙ্কার হাম্বানটোটার মাহিন্দা রাজাপক্ষে আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে। এমন নিন্দনীয় ঘটনা ফাঁস হয়ে যাওয়ায় ইতিমধ্যেই তোলপাড় শুরু হয়েছে ক্রিকেটবিশ্বে!

একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে জানা গেছে, হাম্বানটোটায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার ওয়ানডে সিরিজের খেলা চলছিল। সেই সিরিজের শুরুতেই মাঠকর্মীদের ট্রাউজার দিয়েছিল শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। বলা হয়েছিল, এই প্যান্ট পরেই সিরিজ চলাকালীন যাবতীয় দায়িত্ব পালন করতে হবে তাদের। কিন্তু সঙ্গে এ কথা বলা হয়নি, সিরিজ শেষে পোশাক ফেরতও দিতে হবে।

নিয়ম মেনে সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে মাঠকর্মীরা বোর্ডের দেওয়া পোশাকই পরেন। কিন্তু ম্যাচের পর তারা জানতে পারেন, এসএলসির দেওয়া ট্রাউজার না খুলে দিলে তাদের পারিশ্রমিক দেওয়া হবে না। কিন্তু এই নিয়ম না জানার ফলে অতিরিক্ত প্যান্টও নিয়ে আসেননি তারা। স্বাভাবিকভাবেই সেই সমস্যার কথা বোর্ডকে জানান। কিন্তু তাতে কোনো লাভ হয়নি।

একরকম বাধ্য হয়েই সকলে প্যান্ট ফেরত দিয়ে পারিশ্রমিক নেন। উপায়ান্তর না দেখে এরপর ভেন্যু থেকে শুধু অন্তর্বাস পরেই বের হন তাদের অনেকেই। একজন মাঠকর্মী জানান, ‘পোশাক ফেরত দেওয়ার পরেও পুরো মজুরি মেলেনি। ‘ আর একজনের অভিযোগ, ‘বোর্ডের তরফে আমাদের এ বিষয়ে কিছুই বলা হয়নি। ফলে আচমকা ট্রাউজার ফেরত চাওয়ায় আমাদের কিছু করার ছিল না’।

গোটা ঘটনার পর অবশ্য ক্ষমা চেয়েছে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট বোর্ড। এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যারা এর জন্য দায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ক্ষুদ্ধ হয়েছেন শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী দায়াসিরি জয়াসেকেরাও। ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বিষয়টা মেনে নিতে পারছি না। ৬ দিন ব্যবহার করা একটা ট্রাউজার কী কাজে লাগবে বলে ফেরত চাওয়া হল তা খতিয়ে দেখা হবে। ‘