slider জাতীয়

দীর্ঘ সফরে লন্ডন যাচ্ছেন খালেদা জিয়া

১৫ জুলাই লম্বা সফরে লন্ডন যাচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। চিকিৎসার পাশাপাশি পরিবারের সাথে ঈদুল আজহা উদযাপন করে তিনি দেশে ফিরবেন বলে বিএনপি সূত্রে জানা গেছে।

সূত্রটি জানায়, বেগম খালেদা জিয়া সেখানে দুই ছেলের পরিবারের সদস্যদের সাথে ঈদুল আজহা উদযাপন করবেন। বরাবরের মতো এবারো তিনি তার ছেলে, বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছেই উঠবেন। চিকিৎসার ফাঁকে ছেলে, পুত্রবধূ, নাতনি ও অন্য স্বজনদের সঙ্গে সময় কাটাবেন। এ ছাড়া পা ও চোখের চিকিৎসা করাবেন খালেদা জিয়া। বেশ কিছুদিন ধরে তার পায়ের সমস্যা কিছুটা বেড়েছে। এর আগে তিনি চোখের অপারেশন করিয়েছিলেন লন্ডনে।

সূত্রমতে, দলের স্থায়ী কমিটির এক সদস্য, এক ভাইস চেয়ারম্যান, নির্বাহী কমিটির এক তরুণ নেতা এবং সাবেক এক ছাত্রনেতা বিএনপি চেয়ারপারসনের সফরসঙ্গী হয়ে লন্ডন যাচ্ছেন।

এরই মধ্যে দেশের গণমাধ্যমে বেগম জিয়ার এই সফরের খবরটি বেশ গুরুত্ব পাচ্ছে। গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, চিকিৎসার উদ্দেশ্যে ম্যাডামের এই সফর হলেও জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে সফরটি দেশের রাজনীতির জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখা হচ্ছে বিভিন্ন মহল থেকে।

প্রতিবেদনগুলোতে বলা হচ্ছে, শেখ হাসিনার অধীনে আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা না করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ, প্রয়োজনে আন্দোলনের ছক তৈরি, লন্ডন থেকে ফিরেই আন্দোলনের কর্মসূচী প্রদান, দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্তকরণসহ জাতীয় রাজনীতির বিভিন্ন বিষয়ে তারেক রহমানের সঙ্গে বৈঠকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে সফরকালে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নিজের অনুপস্থিতিতে দল পরিচালনা এবং সংগঠনকে গতিশীল রাখতে কয়েকদিনের মধ্যেই সিনিয়র নেতাদের সাথে বৈঠক করবেন খালেদা জিয়া।

দলের নেতারা জানান, আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগে এটাই হতে পারে খালেদা জিয়ার শেষ লন্ডন সফর। তাই নির্বাচনের প্রস্তুতিসহ সার্বিক বিষয়ে এই সফরেই তারেক রহমানের সাথে আলোচনা চূড়ান্ত করতে চান বিএনপি প্রধান। এর মধ্যে আন্দোলন, জাতীয় নির্বাচন, স্থায়ী কমিটির শূন্য পদ পূরণ, জাতীয় নির্বাহী কমিটির গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদে পদায়ন, গুরুত্বপূর্ণ জেলা কমিটি গঠনের ব্যাপারে তারেক রহমানের সাথে আলোচনা করবেন বেগম জিয়া। এতে সফরসঙ্গী নেতারাও থাকবেন। এ ছাড়া আগামী জাতীয় নির্বাচনের বিষয়ে আন্তর্জাতিক মহলের চাওয়া-পাওয়া কি সেসব বিষয়েও আলোচনায় হবে। আন্তর্জাতিক সমর্থন আদায়ে বিএনপির আরো কী করণীয় রয়েছে, তাও গুরুত্বের সাথে আলোচনায় আসবে। পাশাপাশি কবে নাগাদ আন্দোলনে নামা উচিত হবে তাও চূড়ান্ত হবে এই সফরে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের এক উপদেষ্টা বিবার্তাকে জানান, আগামী নির্বাচনের জন্য বিএনপির প্রার্থী মনোনয়নের প্রক্রিয়া নিয়েও তারেক রহমানের সাথে মতবিনিময় করবেন তিনি। লন্ডন সফর শেষ করে নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের রূপরেখা দেবেন খালেদা জিয়া। রূপরেখা কী হবে, তা নিয়েও সেখানে আলোচনা হবে। সবমিলিয়ে আগামীতে বিএনপির আন্দোলন ও নির্বাচনী কৌশল চূড়ান্ত হতে পারে এ সফরে।