খেলা-ধুলা

ডাবল সেঞ্চুরি হলো না রুটের, শেষের ঝড়ে ইংল্যান্ডের ৪৫৮

জো রুটের সেঞ্চুরি আর বেন স্টোকস ও মঈন আলীর ফিফটি প্রথম দিনেই ইংল্যান্ডকে ভালো অবস্থানে পৌঁছে দিয়েছিল। আজ দ্বিতীয় দিনে শেষ দিকে স্টুয়ার্ট ব্রডের ঝোড়ো ফিফটি ইংলিশদের এনে দিল সাড়ে চারশ ছাড়ানো সংগ্রহ।

লর্ডস টেস্টের প্রথম ইনিংসে অলআউট হওয়ার আগে ইংল্যান্ড করেছে ৪৫৮ রান। লাঞ্চের আগে বিনা উইকেটে ১০ রান তুলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

শেষ পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকা সংগ্রহ ১ উইকেটে ১৩ রান ।

অথচ আগের দিন চারশ করার কথা কল্পনাও করতে পারেনি ইংলিশরা। ৭৬ রানেই হারিয়েছিল যে ৪ উইকেট! এরপরই শুরু রুটের লড়াই। এই লড়াইয়ে তাকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন স্টোকস ও মঈন। দুজনের সঙ্গে রুটের দুটি শতরানের জুটি স্বাগতিকদের পৌঁছে দেয় শক্ত অবস্থানে। ইংল্যান্ড প্রথম দিন শেষ করেছিল ৫ উইকেটে ৩৫৭ রানে। নেতৃত্বের অভিষেকে সেঞ্চুরি করা রুট অপরাজিত ছিলেন ১৮৪ রানে, মঈন ৬১ রানে।

আজ দ্বিতীয় দিনে রুটের সামনে ছিল ডাবল সেঞ্চুরি হাতছানি। টেস্ট অধিনায়কত্বের অভিষেকে ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তি আছে মাত্র দুজনের- গ্রাহাম ডাউলিং ও শিবনারায়ণ চন্দরপল। আজ তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে এই দুজনের পাশে নাম লেখানোর সুযোগ ছিল রুটের সামনে। কিন্তু ১০ রানের জন্য ডাবল সেঞ্চুরি পাননি ইংল্যান্ডের নতুন টেস্ট অধিনায়ক।

আগের দিনের সঙ্গে আজ দ্বিতীয় দিনে আর ৬ রান যোগ করতেই ফিরেছেন রুট। দিনের তৃতীয় ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার মরনে মরকেলের বলে উইকেটকিপার কুইন্টন ডি কককে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ইংলিশ অধিনায়ক। ২৩৪ বলে ২৭ চার ও এক ছক্কায় ১৯০ রানের ইনিংসটি সাজান ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। রুট-মঈন ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে আসে ১৭৭ রান।

এক বল পর লিয়াম ডসনকেও ফিরিয়েছেন মরকেল। তবে মঈন দলকে টেনে নিয়েছেন। অষ্টম উইকেটে তিনি ব্রডকে সঙ্গে নিয়ে গড়েন ৪৬ রানের জুটি। কাগিসো রাবাদার বলে মঈন আউট হয়েছেন সেঞ্চুরি থেকে ১৩ রান দূরে থাকতে। তার ৮৭ রানের ইনিংসে ছিল ৮টি চার। দলের ৪১৩ রানে দাঁড়িয়ে রাবাদার একই ওভারে ফিরেছেন মার্ক উডও।

এরপরই শেষ উইকেটে জেমস আন্ডারসনকে সঙ্গে নিয়ে ব্রুডের ২৭ বলে ৪৫ রানের ঝোড়ো জুটি। এই জুটি গড়ার পথেই মরকেলকে টানা দুই ছক্কা হাঁকিয়ে ৪৫ বলে ফিফটি পূর্ণ করেছেন ব্রড। ২০১৩ সালের পর প্রথম টেস্ট ফিফটি পেলেন তিনি। অ্যান্ডারসনকে (১২) ফিরিয়ে ইংল্যান্ডের ইনিংসের ইতি টেনেছেন মরকেল। ৪৭ বলে ৮ চার ও ২ ছক্কায় ৫৭ রানে অপরাজিত ছিলেন ব্রড।

১১৫ রানে ৪ উইকেট নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার সেরা বোলার মরকেল। রাবাদা ও ভারনন ফিল্যান্ডার ৩টি করে উইকেট ভাগ নিয়েছেন।