বিভাগীয় সংবাদ

জামালপুরে যমুনার পানি বিপদ সীমার ৮৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে

জামালপুরের বাহাদুরাবাদ ঘাট পয়েন্টে যমুনার পানি বিপদ সীমার ৮৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ইসলামপুরের ৭টি ইউনিয়নের বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।

ইতোমধ্যেই ইসলামপুরের প্রায় ৬০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। ইসলামপুরের যমুনা তীরবর্তী চরাঞ্চলের অসংখ্য ঘরবাড়ি। বন্যার পানিতে ভেসে যাবার উপক্রম হয়েছে।

সরেজমিন পরিদর্শনে জানা গেছে, ইসলামপুর থেকে ৪কিলোমিটার উত্তর পশ্চিমে পাথর্শী ইউনিয়নের বানিয়া বাড়ি গ্রাম এবং দক্ষিণ পশ্চিমের ৪ কিলোমিটার দুরে আমতলী বাজার। ওই দুটো জায়গা থেকে নৌকা ছাড়া কোথাও যাবার জো নেই। চারিদিকে শুধু পানি আর পানি। বলিয়াদহ গ্রাম আর নদী একাকার হয়ে গেছে। বলিয়াদহ নদীর দুই পাড়ের দুইটি গ্রাম যেন পানিতে ভাসছে।

তাদের গ্রামের প্রায় ছয় হাজার মানুষ তিন ধরে পানিবন্দি। কারো বাড়িতেই রান্না করে খাবার জো নেই। তারা শুকনো খাবার ও বিস্কুট চানাচুর খেয়ে জীবন ধারণ করছেন। সেখান থেকে দুই কিলোমিটার পশ্চিমে বলিয়াদহ শিংভাঙ্গা পাকা সড়কে শেষ মাথায় কোমর সমান পানিতে নিমজ্জিত রাস্তার উপর আশ্রয় নিয়ে দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন শিংভাঙ্গা গ্রামের শতাধিক পরিবার। ওই বাড়িগুলো থেকে মাত্র একশ মিটার দুরে উত্তাল যমুনা বইছে। যমুনার তীব্র স্রোতে যেকোন মূহুর্তে ওই বাড়িঘরগুলো বানের পানিতে ভেসে যাবার উপক্রম হয়েছে।