রাজনীতি

জাতীয় পার্টির আমলেই প্রকৃত উন্নয়ন হয়েছে :সালমা ইসলাম

eসাবেক মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি বলেছেন, জাতীয় পার্টি ৯ বছর রাষ্ট্র ক্ষমতায় ছিল। দেশের প্রকৃত উন্নয়ন হয়েছে জাতীয় পার্টির আমলেই।

তিনি বলেন, ওই সময় রাস্তা-ঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট নির্মিত হয়েছিল। সড়কে সোডিয়াম বাতি লাগানো হয়। ঢাকাকে রক্ষায় নির্মাণ করা হয় বেড়িবাঁধ। নারী নির্যাতন আইন ও পারিবারিক আইন করা হয় এরশাদের শাসনামলেই।

শনিবার কেরানীগঞ্জের আটিবাজারে ঢাকা জেলা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক টিমের মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সালমা ইসলাম এমপি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, দেশের মানুষ এখন ভালো নেই। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এ দেশে হিন্দুদের ওপর হামলা হচ্ছে। নেতাকর্মীরা খুন-গুম হচ্ছেন। কুমিল্লা, নোয়াখালী, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসব কী হচ্ছে? এগুলো ভালো লক্ষণ নয়। এ থেকে উত্তরণে আবারও জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় আনতে হবে।

সাবেক এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, ক্ষমতায় থাকলে মানুষের হুঁশ থাকে না। ক্ষমতায় যাওয়ার পর হা-হুতাশ করেন। কাজেই যারা ক্ষমতায় আছেন তাদের প্রতি আহ্বান, মানুষের জন্য, সমাজের জন্য ও দেশের জন্য কাজ করুন। আপনি স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। হতাশায় পুড়তে হবে না, মানুষের ভালোবাসাও পাবেন।

তিনি আরও বলেন, তরুণদের সুযোগ দিতে হবে। আগামীতে তারাই নেতৃত্বে আসবে। সুযোগ না পেলে নেতৃত্ব তৈরি হবে না। আজকে আমরা যারা প্রথম সারিতে বসে আছি, একদিন নবাগতদের জন্য সেই আসন ছেড়ে দিতে হবে। এক সময় তারাও একইভাবে পরের প্রজন্মকে আসন ছেড়ে দেবে। হৃদয় বড় করতে হবে। হৃদয় যার ছোট সে রাজনীতিতে সফল হতে পারবে না।

জাতীয় পার্টির এই প্রেসিডিয়াম সদস্য নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, হতাশার কিছু নেই। জাতীয় পার্টির জন্য সুসময় অপেক্ষা করছে। ব্যবহার দিয়ে, কর্মক্ষমতা দিয়ে লোকজনকে জাতীয় পার্টিতে আনতে হবে। ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে জাতীয় পার্টির কমিটি গঠন করুন। কী সমস্যা? কী করতে হবে? তা চিহ্নিত করুন। কর্মীদের নির্দেশনা দিন।

তিনি বলেন, বিএনপির ঘাঁটি, আওয়ামী লীগের ঘাঁটি এগুলো আমরা শুনতে চাই না। প্রত্যেকে কাজ করুন, জাতীয় পার্টির ঘাঁটি তৈরি করুন। মনে রাখবেন, পরিশ্রম না করলে সফলতা আসে না।

সালমা ইসলাম এমপি বলেন, আমি একজন নারী হয়েও পার্টির জন্য দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছি। একটা অপারেশন হয়েছে। ডাক্তার ৯ মাস বিশ্রামে থাকতে বলেছেন। কিন্তু ৩ মাস কোনোরকম বিশ্রাম নিয়েছি। ওই সময় হাসপাতালের বেডে শুয়ে, বাসায় বসেই কাজ করেছি। মোবাইল ফোনে সবার সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছি। যখন আমাকে ডাকা হয়, ছুটে যাই। রাস্তার জার্নিতে মাঝে মাঝে পেটে ব্যথা হয়। তা নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি। করে যাব ইনশাআল্লাহ।

তিনি বলেন, আমি কথায় বিশ্বাস করি না, কর্মে বিশ্বাস করি। জাতীয় পার্টি, লাঙল এবং এরশাদ সাহেবকে সামনে রেখেই আমরা এগিয়ে যাব।

ঢাকা জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সাবেক এমপি খান মোহাম্মদ ইসরাফিল খোকনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নুরু। সভায় মুঠোফোনে নেতাকর্মীদের শুভেচ্ছা বার্তা দেন পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার নুরুল আনোয়ার বেলাল, বাহাদুর ইসলাম ইমতিয়াজ, আসাদুজ্জামান চৌধুরী রানা, বশির আহমেদ, লোকমান হোসেন, লিটন হোসেন খান, নজরুল ইসলাম, ইয়াকুব আলী, আ. সাত্তার গালিব, নবাবগঞ্জ থানা জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক জুয়েল আহমেদ, জাহাঙ্গীর চোকদার, দোহার জাতীয় পার্টির ডা. আলাউদ্দিন আল আজাদ, আবদুল আলিম, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার মনির সরকার, লাইজুল ইসলাম লাইজু, কেরানীগঞ্জ মডেল থানার শাকিল আহমেদ শাকিল, মজনু মিয়া, কামাল বাদশা, আইয়ুব আলী, সাভার মডেল থানা জাতীয় পার্টির সভাপতি ইয়াকুব আহমেদ, ধামরাই থানা সভাপতি আবদুল মালেক, জাতীয় মহিলা পার্টির নারীনেত্রী আসমা আক্তার রুমি, রেশমি হোসেন আজাদ, জেলা ছাত্রসমাজের সভাপতি মেহেদী হাসান মিলন খান, শ্রীকৃষ্ণ সাহা, আরিফুল ইসলাম, আবুল হোসেন প্রমুখ।

Add Comment

Click here to post a comment