Default

চার বছর প্রেম করে বিয়ে, অপহরণ মামলায় পিতা-পুত্র শ্রীঘরে

wsচার বছর প্রেমের পর স্কুলছাত্রী মাছুমাকে বিয়ে করেন জাহাঙ্গীর আলম।

কিন্তু এখন ওই স্কুলছাত্রীকে অপহরণ মামলায় বাবা আব্দুল মজিদকে নিয়ে জেলে যেতে হয়েছে জাহাঙ্গীরকে।

নীলফামারীর ডিমলা থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার সাভার জেলার নবীনগর থেকে তাদের গ্রেফতার এবং স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে।

শুক্রবার মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা নীলফামারী সদর হাসপাতালে সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে।

জানা যায়, ডিমলার ঝুনাগাছ চাপানি ইউনিয়নের ভেন্ডাবাড়ী গ্রামের মকছেদুল ইসলামের মেয়ে ও উত্তর ঝুনাগাছ চাপানি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী মাছুমা আক্তারের একই এলাকার আব্দুল মজিদের ছেলে জাহাঙ্গীর আলমের চার বছরের প্রেমের সম্পর্ক।

গত ১৯ অক্টোবর নীলফামারী সদরের রামনগর নিকাহ রেজিস্ট্রার অফিসে গিয়ে ১ লাখ ২৫ হাজার একশত টাকা দেনমোহরে দু’জনে বিয়ে করেন।

তবে বিয়ের বিষয়টি জানতে পেয়ে ছাত্রীর দাদা আজিমুদ্দিন বাদী হয়ে নীলফামারী আদালতে ৬ জনকে আসামি করে অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

আদালত ডিমলা থানার ওসিকে মামলা নথিভুক্ত করে স্কুলছাত্রীকে (ভিকটিম) উদ্ধার ও আসামিদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেন।

আদালতের নিদের্শে ২ নভেম্বর ডিমলা থানায় মামলা (নং-৩) দায়ের করা হয়। থানায় মামলা দায়ের হলে মাছুমা ও জাহাঙ্গীর আলম সাভারের নবীনগরে পালিয়ে যান।

সেখানে জাহাঙ্গীর রিক্সা চালানোর কাজ শুরু করেন। মঙ্গলবার ছেলে ও ছেলের বউকে দেখতে সাভার যান আব্দুল মজিদ।

পরে বৃহস্পতিবার পুলিশ অভিযান চালিয়ে জাহাঙ্গীর ও তার বাবাকে গ্রেফতার করে।

তবে তাকে অপহরণের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন মাছুমা আক্তার।

শুক্রবার সকালে ডিমলা থানায় তিনি যুগান্তরকে জানান, আমাকে কেউ অপহরণ করেনি। জাহাঙ্গীরের সঙ্গে দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সে সূত্র ধরেই তারা বিয়ে করেছেন।

এ সময় মাছুমা ছয় মাসের অন্তঃসত্তা বলেও জানান।

মাছুমা বলেন, ‘বিয়েতে তার বাবা-মা রাজি ছিলেন। কিন্তু বাগড়া দেন দাদা। এ কারণেই তিনি মিথ্যা মামলা করেছেন।’

ডিমলা থানার এসআই ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শাহাবুদ্দিন যুগান্তরকে জানান, প্রেমের সূত্রে বিয়ে করলেও মাছুমার বয়স কম হওয়ায় তার দাদা আদালতে মামলা করেছেন। মামলা দায়ের হওয়ার পর সাভার পুলিশের সহযোগীতায় নবীনগর থেকে মাছুমার স্বামী জাহাঙ্গীর ও তার বাবাকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি বলেন, শুক্রবার মেয়েটিকে আদালতে হাজির করে জবানবন্দি রেকর্ড ও ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হবে।

ভিডিও:শিক্ষিকা বাচ্চাদের তালি বাজাতে বললে, নীল জামা পড়া বাচ্চাটি যা করল ! দেখে আপনি হাসতে হাসতে ..(ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment