বিনোদন

চাঞ্চল্যকর তথ্য মামার, হত্যার আগের রাতে সালমান সামিরাকে তালাক দিতে চেয়েছিলেন

হত্যার আগের রাতেই স্ত্রী সামিরাকে তালাক দিতে চেয়েছিলেন চিত্রনায়ক সালমান শাহ! বুধবার সময় টিভির লাইভে এসে এ কথা বলেছেন সালমান শাহ’র ছোট মামা আলমগীর কুমকুম।
সালমান শাহ ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যজনকভাবে মারা যান। মৃত্যুর ২১ বছর পেরিয়ে গেলেও সেই রহস্যের জট আজও খোলেনি। মৃত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। আত্মহত্যা হিসেবে এটাকে চালালেও পরিবারের দাবি সব সময়ই ছিল, সালমান শাহকে খুন করা হয়েছে।
সালমান পরিবারের সন্দেহের তালিকায় রয়েছেন সালমান শাহর স্ত্রী সামিরা ও সামিরার বর্তমান স্বামী মোস্তাক ওয়াইজ। তিনি সালমান শাহর বাল্যবন্ধুও। সালমান শাহর মৃত্যুর তিন বছর পর মোস্তাক ওয়াইজ বিয়ে করেন সামিরাকে। সালমান শাহর মৃত্যু নিয়ে এখন পর্যন্ত সংবাদ মাধ্যমে মুখ খোলেননি সামিরা ও তার স্বামী মোস্তাক।
পরিবারের তরফ থেকে জানা গিয়েছিল, সালমান শাহর সাবেক স্ত্রী সামিরা স্বামী মোস্তাকসহ থাইল্যান্ডে বসবাস করছেন। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এ তথ্য সত্য নয়।
সত্য হলো; মোস্তাক ওয়াইজ স্ত্রীসহ দেশেই রয়েছেন। ঢাকার গুলশান এলাকায় মঙ্গলবার মোস্তাকের সাথে সাক্ষাৎ ও কথা হয়েছে কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মীর। বলা যায় প্রথমবারের মতো মিডিয়ার মুখোমুখি হলেন সামিরার স্বামী মোস্তাক।
সালমানের প্রতি ভালোবাসা থেকেই তিনি সামিরাকে বিয়ে করেন বলে জানান। মোস্তাক বলেন, ‘সালমান শাহ আমার বন্ধু। তাকে আমি অনেক পছন্দ করতাম। সালমান মারা যাওয়ার ৩ বছর পর আমি সামিরাকে বিয়ে করি। সামিরা প্রথমে এই বিয়েতে রাজি ছিল না। পরে দুই পরিবারের সম্মতিতেই আমাদের বিয়ে হয়।
সামিরার বিরুদ্ধে সালমান শাহকে হত্যার অভিযোগ রয়েছে। তারপরও সামিরাকে বিয়ে করেন মোস্তাক। সে সময় তার সঙ্গে সামিরার পরকীয়ার গুঞ্জন ওঠে। এ বিষয়ে মোস্তাক বলেন, সামিরার সঙ্গে আমার পরকীয়ার প্রশ্নই আসে না। কারণ সামিরা আমার বন্ধু সালমান শাহর স্ত্রী। তাদের লাভ ম্যারেজ ছিল। সেখানে আমার সঙ্গে কেন পরকীয়া হবে?
মোস্তাক বলেন, আসলে আমি আমার বন্ধুর প্রতি ভালোবাসা থেকেই সামিরাকে পরে বিয়ে করেছি। ইমনের (সালমান শাহ) মৃত্যুর পর সামিরার জীবনটা অনেকে বিষিয়ে তুলেছিল। সেই পরিস্থিতি থেকে তাকে বাঁচাতে দায়বদ্ধতার জায়গা থেকেই ওকে বিয়ে করেছি।
সামিরা-মোস্তাকের ঘরে দুই মেয়ে এক ছেলে রয়েছে। বর্তমানে তাদের নিয়ে সংসার করছেন তারা।



সর্বশেষ খবর