আন্তর্জাতিক

ঘোমটা খুলছে সউদি নারীরা

11সউদি আরব রক্ষণশীল দেশ, আর তার রাজধানী রিয়াদ দেশের অন্যান্য অংশের তুলনায় রক্ষণশীলতর। ফলে এখানে নারীদের ঘর থেকে বের হলেই সারা শরীর তো বটেই, এমনকী নেকাব দিয়ে মুখও ঢেকে নিতে হয়।

তবে বিষয়টা এখন আর ‘হয়’-এ সীমিত নেই, এটি এখন ‘হতো’ হতে চলেছে। রিয়াদের নারীরা এখন ঘোমটা বা নেকাব ছাড়াই বাইরে বের হচ্ছে। কারণ, এখন অনেকেই মনে করছেন, চেহারা ঢাকাটা ইসলামে বাধ্যতামূলক নয়।

এখন হিজাব পরাটাও অনেকটা ঐচ্ছিক ব্যাপারে এসে দাঁড়িয়েছে। অনেক মেয়েই এখন চুল ছেড়ে চলছে, অনেকে চিরাচরিত কালো আবায়ার বদলে পরছে ঝলমলে রঙ্গিন আবায়া।

পেশায় স্বাস্থ্যকর্মী, তিন সন্তানের মা রাওয়ান আল-ওয়াবেল বলেন, আমি রিয়াদের অনেক পরিবারকে চিনি, যেখানে বড় মেয়েটি হিজাব পরছে, কিন্তু পরেরগুলো নয়।

তিনি বলেন, রিয়াদের নারীরা এখন কোনো কোনো জায়গায় এমনকী মাথায় ওড়না পর্যন্ত না পরে যেতে পারে। তবে জেদ্দার রাজধানী দাম্মামের পরিবেশই সবচেয়ে খোলামেলা। এখানে এমন সউদি নারীকেও দেখা যাবে, যাদের মাথায় ওড়নাও নেই।

একই কত্থা বলেন নাজলা আল-সুলাইমান। রিয়াদের একটি আন্তর্জাতিক ব্যাঙ্কের কমপ্লায়েন্স ম্যানেজার এই নারী বলেন, রাজধানীর লোকজন অনেক বেশি সহনশীল। তাছাড়া গত তিন বছরে অনেক বিস্ময়কর পরিবর্তন এসেছে। দেখুন না, অনেক নারী মুখ না ঢেকেই পথ চলছে, অনেকের আবায়া হয়েছে রঙিন।

তিনি বলেন, আগে ব্যাপার দেখে অবাক হতাম, এখন আর হই না। সংখ্যায় বেশি না হলেও হাসপাতাল, ব্যাঙ্ক সবখানে এরকম মেয়েদের দেখা যাচ্ছে। পরিবর্তন আসছে মিডিয়ায়, আর মিডিয়া বদলে দিচ্ছে আমাদের।

নাজলা বলেন, তবে গোটা রিয়াদের অবস্থাই যে এক রকম, তা নয়। দক্ষিণ রিয়াদ কিংবা আরো অনেক এলাকায় অবস্থা এখনো আগের মতোই। সূত্র : সউদি গেজেট

ভিডিওঃ ইউটিউবে ঝড়! মৌসুমি হামিদের নতুন ভিডিও দেখে নিন

Add Comment

Click here to post a comment