বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

গুগল, ফেসবুক, ইয়াহু থেকে এবার ডিলিট হবে ধর্ষণের ভিডিও?

1বহুদিন ধরেই সোশ্যাল নেটওয়র্কিং সাইটগুলিতে আপলোড ও শেয়ার করা হয় যৌন নিগ্রহের ভিডিও। গুগল সার্চেও রেপ ভিডিওর সার্চ প্রচুর। গত ১৫ বছর ধরে চলে আসছে এই প্র্যাকটিস। প্রথমদিকে এই ধরনের ভিডিওর সার্চ হতো শুধুই গুগলে এবং ইউটিউবে। পরবর্তী সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ার উত্থানের পরে এই ধরনের ভিডিও আরও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে ইন্টারনেট ইউজারদের মধ্যে। এই নিয়ে বিস্তর লেখালেখি হয়েছে সংবাদমাধ্যমে। বছর দুয়েক আগে চাইল্ড পর্নোগ্রাফির বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

কিন্তু পর্নোগ্রাফি আর রেপ ভিডিওর মধ্যে মূলগত পার্থক্য রয়েছে। প্রথমটি সাজানো আর দ্বিতীয়টি বাস্তবে ঘটেছে। ধর্ষণ হল এমন একটি সামাজিক অপরাধ যার কোনও ক্ষমা নেই। এর জন্য বহু মানুষকে ফাঁসিও দিয়েছে ভারতীয় আদালত। তবু এই ধরনের ঘৃণ্য কাজের ভিডিও ছড়িয়ে রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় ও সার্চ ইঞ্জিনগুলিতে। এতদিন পরে এবার সেই নিয়ে কড়া পদক্ষেপ নিতে চলেছে ভারতের শীর্ষ আদালত।

গতকাল, ৫ ডিসেম্বর এই বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে একটি নোটিস পাঠানো হয়েছে গুগল, ফেসবুক, ইয়াহু ও মাইক্রোসফট-কে। এদের সোশ্যাল নেটওয়র্কিং সাইটে এবং সার্চ ইঞ্জিনে কেন বিপুল সংখ্যক ধর্ষণের ভিডিও রয়েছে সেই নিয়ে ভারতের শীর্ষ আদালতের কাছে জবাবদিহি করতে হবে তাদের আগামী ৯ জানুয়ারির মধ্যে। সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এমবি লোকুর এবং বিচারপতি ইউ ইউ ললিতের বেঞ্চ থেকেই এই নোটিসটি পাঠানো হয়েছে।

ভিডিওঃ প্রকাশ পেল নুসরাত ইমরোজ তিশার সেই বিশেষ ভিডিওচিত্র

Add Comment

Click here to post a comment