বিনোদন

গাড়িতে এবার চুমুতে ‘না’!

এটা একটা কথা হল? গাড়ির মধ্যে দু’জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ চাইলে সামান্যতমও ঘনিষ্ঠ হতে পারবেন না?

হ্যাঁ, এবার এক এক করে অনেক প্রসঙ্গই উঠতে পারে! বলতেই পারেন অনেকে, প্রকাশ্য স্থানে অন্তরঙ্গ হওয়ার দরকারটাই বা কী! ব্যক্তিগত ব্যাপার, তা চার দেয়ালের মধ্যে থাকলেই তো সবচেয়ে ভাল! শুধু শুধু তা সবার সামনে আনার দরকারটাই বা কী!

কিন্তু এও ভাবুন, একটা সুন্দর সময় কাটিয়ে আপনি আর কাছের মানুষটি যদি একটা উবের ভাড়া করেন আর তার মধ্যে একটু অন্তরঙ্গ হয়ে বসে থাকেন, তাতেও আপত্তি আসবে? এমনকী, একটু বেশি মদ খেয়ে ফেললেও ওঠা যাবে না উবের-এ?

সংস্থা তো অন্তত তেমনটাই বলছে! উবের জানিয়েছে, এবার থেকে তারা তাদের গাড়িতে যাতায়াতের জন্য একটা শর্ত আরোপ করেছে। ‘নো সেক্স’ নামে জারি হয়েছে সেই শর্তাবলী।

তাতে বলা হয়েছে, গাড়ির মধ্যে যাত্রীরা এমন কিছু করতে পারবেন না যা চালকের অস্বস্তির কারণ হতে পারে! মানে, চুমু-আলিঙ্গন সবই বিলকুল বাদ!

হঠাৎ কেন এমন একটা বেমক্কা শর্ত জারি করছে সংস্থা? উবের বলছে, হামেশাই অভিযোগ ওঠে যে তাদের চালকরা যাত্রীর শ্লীলতাহানি করেছেন! কিন্তু উল্টোটাও ঘটে! যাত্রীদের অন্তরঙ্গতা অস্বস্তিতে ফেলতে পারে চালককে। তাই এহেন বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ! আর শুধু অন্তরঙ্গতাই নয়, চালকের অস্বস্তি এড়াতে একটু বেশি মদ খেয়ে ফেলা যাত্রীরও গাড়িতে ওঠায় নিষেধাজ্ঞা জারি করছে সংস্থা।

আর সেখান থেকেই তৈরি হচ্ছে বিতর্ক। এই বিজ্ঞপ্তি জারি করে ঠিক কী করতে চাইছে উবের? প্রকারান্তরে কি এটাই বলছে না, এক যাত্রী শ্লীলতাহানির জন্য অন্য যাত্রীর অন্তরঙ্গতা দায়ী যা দেখে নিজেকে আর সামলাতে পারেন না চালক?

এর পরেও যাত্রীরা উবের-এ যাতায়াত পছন্দ করবেন তো?

ভিডিওঃ এইসব মেয়েদের অবস্থা দেখুন ফেসবুক লাইভে এসে নোংরামি

Advertisements

Add Comment

Click here to post a comment