অপরাধ/দুর্নীতি আইন-আদালত গাজীপুর ঢাকা বিভাগীয় সংবাদ

গাজীপুরে ড্রামের ভেতর থেকে উদ্ধার হওয়া সেই শিক্ষিকা পরিকল্পিত হত্যার শিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর : গাজীপুরে ড্রামের ভেতর থেকে উদ্ধার হওয়া নরসিংদীর ঘোড়াদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা নার্গিস বেগমকে (৫৪) পারিবারিক কলহের জেরে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

এ খুনের ঘটনায় রোববার রাতে জয়দেবপুর থানায় মামলা করা হয়েছে। নার্গিস বেগমের ভাই আহমদ হোসেন মানিক বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, নার্গিস বেগমের স্বামী আনসার উল্লাহ আগে একটি বিয়ে করেছিলেন। বিষয়টি তারা (মানিকের পরিবার) জানতেন না। ওই সংসারে আসমা নুসরাত (৩২) ও মান্নী (৭) নামের দুটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

আনসার উল্লাহর আগের স্ত্রী টিংকু বেগম (৫৭), তার মেয়ে ও মেয়ের জামাতার সঙ্গে ফ্ল্যাট ও জমিজমা নিয়ে নার্গিসের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল।

বিষয়টি নিয়ে ঢাকার নাখালপাড়ায় কয়েকবার বিচার-সালিশও হয়। নার্গিস বেগম ও তার সন্তানদের অর্থসম্পদ থেকে বঞ্চিত করার জন্য অভিযুক্তরা পরস্পর যোগসাজশে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে আসছিলেন এবং একাধিকবার প্রকাশ্যে প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হয় বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

মানিক অভিযোগ করেন, তার বোনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যার রহস্য গোপন করতে লাশ ড্রামে ভরে গাজীপুরে ফেলে দিয়ে আসা হয়।

তিনি এ ঘটনার জন্য তার ভগ্নিপতি আনসার উল্লাহর প্রথম স্ত্রী, তার মেয়ে ও মেয়ের জামাতাকে অভিযুক্ত করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জয়দেবপুর থানার এসআই মন্তোষ চন্দ্র দাস জানান, এ ঘটনায় কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ২ সেপ্টেম্বর ঈদুল আজহার দিন বেলা ১১টার দিকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভোগড়া এলাকার ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশ থেকে ড্রামভর্তি অবস্থায় নার্গিস বেগমের লাশ উদ্ধার করা হয়।