অন্যরকম খবর

খাবারে পেঁয়াজ দেওয়ায় গোপ‌‌নাঙ্গ দেখিয়ে প্রতিবাদ যুবরাজের!

খাবারে পেঁয়াজ অনেকেরই অপছন্দ। হয় অ্যালার্জির কারণে, নইলে নেহাতই অভ্যাসের বশে পেঁয়াজকে খাদ্যতালিকা থেকে দূরে রাখতে ভালবাসেন তাঁরা। এই ধরনের ব্যক্তিরা হোটেল-রেস্তোরাঁয় খেতে গেলে আগেভাগেই বলে দেন পেঁয়াজ ছাড়া যেন তাঁদের খাবার প্রস্তুত করা হয়। কিন্তু ভুলবশত যদি এক-আধ টুকরো পেঁয়াজ কখনও পাতে চলেই আসে, খুব একটা বিচলিত হবেন কি? এমন তো হতেই পারে।

তার জন্য একেবারে উঠে পড়ে প্রতিবাদে সরব হবেন না নিশ্চয়ই। কিন্তু আপনি সরব না হলেও ভারতীয় বংশোদ্ভূত ওকল্যান্ডের বাসিন্দা যুবরাজ শর্মা কিন্তু চৃড়ান্ত প্রতিবাদ করলেন। এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ অনুযায়ী, বার বার বারণ করা সত্ত্বেও যুবরাজের খাবারে পেঁয়াজ দিয়ে ফেলেছিলেন রেস্তোরাঁর রাধুনি। সেই খাবার না খেয়ে রাগে ফুঁসতে ফুঁসতে রেস্তোরাঁ ছাড়েন তিনি।

এর বেশ কিছুক্ষণ পরেই আবার ফিরে আসেন ওই রেস্তোরাঁয়। এবার প্রায় দ্বিগুণ রাগে শাসাতে শুরু করেন রেস্তোরাঁর মালিককে। গুলি করে মালিককে খুন করে দেওয়ার হুমকিও দেন যুবরাজ। তারপর এক ঘর লোকের মাঝে আচমকাই নিজের জামা-প্যান্ট খুলে দৌড়তে শুরু করেন। ঘটনার জেরে হতভম্ভ হয়ে যান উপস্থিত সকলে। কী করা উচিৎ বুঝে উঠতে না পেরে রেস্তোরাঁর এক কর্মী ফোন করে পুলিশে খবর দেন। মুহূর্তের মধ্যেই পুলিশ হাজির হয় সেখানে। কিন্তু পুলিশকে দেখেও পাগলামি থামেনি যুবরাজের। শেষমেশ তাঁকে গ্রেফতার করতে বাধ্য হয় পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে খুনের হুমকি, অশ্লীল আচরণ, জনসমক্ষে উন্মত্ততা—এমন বেশ কয়েকটি ধারায় মামলা করা হয়েছে। সূত্র: এবেলা।