অন্যরকম খবর আন্তর্জাতিক

ক্ষতিপূরণের লোভে বাঘের খাদ্য হিসাবে বৃদ্ধদের বনে পাঠাচ্ছে গ্রামবাসী!

বনের পাশে বসতি হলে মাঝেমধ্যেই গরু, ছাগল এমনকি মানুষের ওপরও আক্রমণের খবর শোনা যায়। তবে এর ব্যতিক্রম ভারতের উত্তরপ্রদেশের পিলিভিট টাইগার রিজার্ভ অঞ্চলে। এ বনের পাশেই আছে ছোট্ট একটা গ্রাম। জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসেই ছোট্ট গ্রামটিতে বাঘের আক্রমণে মারা গেছে সাতজন। রহস্যজনকভাবে মৃতদের সবাই বৃদ্ধ। এ বিষয়ে তদন্ত করতে গিয়ে অভিনব তথ্য নজরে আসে পিলিভিট টাইগার রিজার্ভ (পিটিআর) কর্তৃপক্ষের। বেশ কয়েকটি ঘটনা পর্যবেক্ষণ করে তারা বুঝতে পারেন ঘটনাগুলো ইচ্ছাকৃতভাবেই ঘটানো হচ্ছে।

কারণ হিসেবে তারা বলছেন, বাঘের আক্রমণে কেউ মারা গেলে বন দফতরের পক্ষ থেকে লক্ষাধিক টাকা ক্ষতিপূরণ পাওয়া যায়। গ্রামের লোকজন এ টাকার লোভে ইচ্ছাকৃতভাবেই বাড়ির বৃদ্ধদের বাঘের খাদ্য হিসেবে বনে পাঠাচ্ছে। তবে তারা এটাও ধারণা করছেন যে, ঘটনার সঙ্গে ইচ্ছাকৃতভাবেই যুক্ত থাকছেন পরিবারের বৃদ্ধরাও।

তাদের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রামে জার্নেল সিংহ নামে ষাটোর্ধ্ব এক কৃষক এমন তথ্য মেনেও নিয়েছেন। তার দাবি, গ্রামবাসী জঙ্গল থেকে তেমন সুবিধা পান না। দারিদ্র্যের রোষানলে পড়ে তারা বাধ্য হয়ে এ কাজ করেন। বৃদ্ধরাও ব্যাপারটি মেনে নিয়েছেন। পিটিআরের এই পর্যবেক্ষণ সামনে আসার পরেই ঘটনার তদন্তে নামে বণ্যপ্রাণী অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো। বাঘের আক্রমণে প্রতিটি মৃত্যু, মৃত্যুর কারণ ও সম্পূর্ণ পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে তারা।

তদন্ত কর্মকর্তা কালিম আথার টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানিয়েছেন, প্রতিটি ঘটনা আলাদা আলাদাভাবে পর্যবেক্ষণ করে তার বিস্তারিত প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে ব্যুরোর কাছে। পূর্ণ প্রতিবেদন জাতীয় ব্যাঘ্র সংরক্ষণ দফতরের কাছেও পাঠানো হয়েছে। খুব শিগগিরই এ ঘটনার ব্যাখ্যা পাওয়া যাবে।