Advertisements
জাতীয় মতামত/বিশেষ লেখা/সাক্ষাৎকার

কে এই নারী যার জন্য টাকা জোগাড়ে বেরিয়েছিলেন ফরহাদ মজহার!

কবি, বুদ্ধিজীবী ও রাজনৈতিক ভাষ্যকার ফরহাদ মজহার অপহরণ ঘটনায় যোগ হলো নতুন নাটকীয়তা। চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থেকে এক নারীকে ঢাকা এনে জবানবন্দী নিয়েছে পুলিশ। ওই নারী পুলিশকে বলেছেন যে, অপহরণের দিন তার জন্য টাকা জোগাড় করার জন্য বের হয়েছিলেন ফরহাদ মজহার।

রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের কাছে জবানবন্দী দেন ওই নারী। যিনি নিজেকে ফরহাদ মজহারের ভক্ত এবং তার এনজিওতে এক সময় কাজ করতেন বলে দাবি করেন।

ওই নারী দাবি করেন, ১০ বছর আগে ফরহাদ মজহারের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এক সময় ফরহাদ মজহারের এনজিও উবিনীগে কাজ করতেন বলেও দাবি করেন তিনি।

তিনি দাবি করেন, তার প্রয়োজন মতো ফরহাদ মজহার প্রতি মাসে তাকে ১০-১২ হাজার করে টাকা পাঠাতেন। গত এপ্রিলের ১৬ তারিখে তিনি ফরহাদকে ফোন করে টাকা চান। অপহরণের দিন, তিন জুলাই ফরহাদ মজহার ওই নারীকে ফোন করে জানান যে, তিনি তার জন্য টাকা জোগাড় করতে বের হচ্ছেন।

ওই নারী জানান, তিনি বেলা ১১টার দিকে ফরহাদকে ফোন করে অপহরণ হয়েছেন কি না, জানতে চান। এ সময় ফরহাদ মজহার নাকি তাকে জানান যে, তিনি ভালো আছেন। পরে ওই নারীর কাছ থেকে ডাচ বাংলা ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট নম্বর নিয়ে টাকা পাঠান ফরহাদ।

এ দিকে ওই নারীর জবানবন্দী শোনার পর ফরহাদ মজহারের স্ত্রী বলেছেন, সংবাদকর্মীদের কাছ থেকেই তিনি এ কথা প্রথম শুনলেন।

তিনি বলেন, ‘এটা অবিশ্বাস্য। আগে যা শুনেছিলাম, তার সঙ্গে এর কোনো মিল নেই। অপহরণের ঘটনা আড়াল করার জন্যই এই কাজ করা হচ্ছে বলে মনে হয়।’

উল্লেখ্য, গত তিন জুলাই ভোরে ঢাকার শ্যামলীতে নিজের বাসার সামন থেকে অপহৃত হন ফরহাদ মজহার। সে দিন রাতেই যশোর থেকে উদ্ধার হন তিনি। সারাদিন তাকে উদ্ধার করা নিয়ে তৎপরতা দেখায় প্রশাসন। উদ্ধারের পর দিন সকালে ঢাকায় আনা হয় তাকে। ঢাকায় আনার পর ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় তাকে। পরে ঢাকার বারডেম চিকিৎসাধীন আছেন তিনি।

Advertisements