আইন-আদালত

কিশোর মুরগি ব্যবসায়ীকে খুনের পর গুম, দুইজনের মৃত্যুদণ্ড

eবগুড়ার শেরপুর উপজেলার কাফুরা পূর্বপাড়া গ্রামে কিশোর মুরগি ব্যবসায়ী আল-মাসুদকে (১৬) হত্যা করে প্রতিবেশির সেপটিক ট্যাংকে লাশ গুম করার মামলায় দুই আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আ ম মো. সাঈদ জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্তরা হলোÑ শেরপুরের কাফুরা পূর্বপাড়ার আরকান আলী জায়দারের ছেলে নুরুল ইসলাম জায়দার ও একই গ্রামের আবদুর রশিদের ছেলে মোস্তফা কামাল।

বগুড়ার শেরপুরের কাফুরা পূর্বপাড়া গ্রামের আলমগীর হোসেনের ছেলে কিশোর আল-মাসুদ মুরগি ব্যবসা করত। ২০১৩ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হবার পর নিখোঁজ হয়। এর তিনদিন পর ১৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে প্রতিবেশি জিয়াউর রহমানের বাড়ির সেপটিক ট্যাংকে মাসুদের গলিত লাশ পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে তার মা মালেঞ্চা বেগম শেরপুর থানায় প্রতিবেশি জিয়াউর রহমান, মঞ্জুর রহমান, নজরুল ইসলাম, মো. মঞ্জু, রুহুল আমিন ও তার স্ত্রী বিপাশার বিরুদ্ধে মামলা করেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়- দুই শতক জমির মালিকানা নিয়ে আসামিদের সঙ্গে তার বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে বাদী ও তার পরিবারকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছিল। তারা তার ছেলেকে ডেকে নিয়ে হত্যার পর লাশ গুম করে।

পরে তদন্ত কর্মকর্তা শেরপুর থানার এসআই আবু জাররা নিশ্চিত হন যে, এ হত্যার সঙ্গে ওই ৬ আসামির সম্পৃক্ততা নেই। তিনি হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে একই গ্রামের নুরুল ইসলাম জায়দার ও মোস্তফা কামালকে গ্রেফতার করেন। রিমান্ড শেষে তারা আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেয়।

পরে ২০১৪ সালের ১০ সেপ্টেম্বর নুরুল ইসলাম জায়দার ও মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়।

ভিডিও:ভয়ঙ্কর বিষাক্ত সাপের বিষ দাত যেভাবে ভাঙ্গে সাপুড়েরা !! দেখলে আপনি নড়েচড়ে বসবেন !দেখুন (ভিডিও)

Advertisements

Add Comment

Click here to post a comment