গাজীপুর ঢাকা বিভাগীয় সংবাদ

কালীগঞ্জে শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধের ক্যাম্পেইনে ১৪টি সুপারিশ

রফিক সরকার: ‘সহিংসতা বন্ধ করুন, শিশুর সুরক্ষা নিশ্চিত করুন’ শ্লোগানে গাজীপুরের কালীগঞ্জে ইউনিয়ন পর্যায়ে শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধে ক্যাম্পেইন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার দিনব্যাপী উপজেলার তুমলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ সভা কক্ষে এ ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। আর ইউনিয়ন পর্যায়ে এ আলোচনা সভায় শিশুদের পক্ষে ১৪টি সুপারিশ উঠে আসে।

শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধে এডুকো’র উদ্যোগে ও চাইল্ডরাইটস্ এডভোকেসী কোয়ালিশনের সহযোগীতায় আলোচনা সভার সভাপতিত্ব করেন- তুমলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. মুজিবুর রহমান। এডুকো’র প্রজেক্ট অফিসার মো. শহিদুল ইসলামের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন-তুমলিয়া ইউপি সদস্য দিলীপ কস্তা ও আলী হোসেন, এডুকো’র প্রজেক্ট অফিসার মো. ইসমাইল হোসেন, বোয়ালী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবা বেগম। এ সময় বক্তারা, দেশজুড়ে শিশু ধর্ষণ, অপহরণ ও হত্যার ঘটনা বাড়ায় উদ্বেগ প্রকাশ ছাড়াও বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ৪৫ ভাগই শিশু। আর এই শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধে বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন।

ইউপি সদস্য, শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক, কিশোর-কিশোরী, গণ্যমান্য ব্যক্তি ও বেসরকারী উন্নয়ন সংগঠন এডুকো, ব্র্যাক ও কারিতাসের প্রতিনিধিবৃন্দের অংশগ্রহণে আলোচনা সভায় শিশুর প্রতি সহিংসতার সাম্প্রতিক ঘটনাসমূহ উপস্থাপন করা হয় এবং শিশুদের প্রতি সহিংসতা বন্ধে তাদের সুপারিশ নেয়া হয়। সুপারিশগুলোর মধ্যে আইন আরো কঠোর করতে হবে, আইনের প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে, অপরাধীকে সহানুভ‚তি দেখানো যাবে না। প্রভাবশালীরা যেন অপরাধীকে রক্ষা করতে না পারে সরকারকে তার ব্যবস্থা করতে হবে, শিশুদের সচেতন করতে হবে। তাদের অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতিতে কি ধরণের আচরণ করতে হবে তা শেখাতে হবে, মিডিয়াকে শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধের সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ভ‚মিকা পালন করতে হবে, পুলিশের ভ‚মিকা দায়িত্বশীল ও স্বচ্ছ এবং শিশুবান্ধব হতে হবে, ঘটনা ঘটার আগে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে, ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ে শিশুদের সুরক্ষায় কমিটি গঠন করে সেগুলোর মাধ্যমে সচেতনতা ও সুরক্ষামূলক কাজ করতে হবে, সহিংসতা ও নির্যাতনের সাথে মাদকের সম্পর্ক রয়েছে তাই মাদকের ব্যবহার বন্ধকরতে হবে, যুব সমাজকে বিপথগামী হওয়া থেকে রক্ষা করতে হবে, অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে যেন তারা তাদের সন্তানকে দেখেশুনে রাখেন, সমাজের সকল মানুষকে সচেতন করতে হবে, শিশুদের প্রতি সহিংসতার ঘটনায় শিশুদের দোষারোপ না করে তাদের কথা শুনতে হবে এবং আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে, প্রভাবশালীদের চাপ ছাড়া স্বাধীনভাবে কাজ করারসুযোগ পেলে ইউনিয়ন পরিষদ শিশুদের প্রতি সহিংসতা বন্ধে আরো বলিষ্ঠ ভ‚মিকা রাখতে পারবে। এজন্য জনগণকেও বলিষ্ঠ নেতৃত্ব নির্বাচন করার সুপারিশসহ আলোচনা সভায় মোট ১৪টি সুপারিশ উঠে আসে।

এ সময় বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার (বিএমবিএস) তথ্য অনুযায়ী জানানো হয়। গত জুলাই মাসেই দেশে ৩২ জন শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরামের তথ্য অনুযায়ী আলোচনায় আরো জানানো হয়। চলতি বছরের জানুয়ারী-জুন পর্যন্ত ২৯৪ জন শিশু ধর্ষণ এবং ৪৬ জন শিশু গণধর্ষণের শিকার হয়েছে এর মধ্যে ২৪ জন শিশুই হচ্ছে প্রতিবন্ধি। তাদের হিসাব মতে গড়ে প্রতিদিন প্রায় দু’জন শিশু কোথাও না কোথাও ধর্ষণের শিকার হচ্ছে।