গাজীপুর ঢাকা বিভাগীয় সংবাদ

কালিয়াকৈরে পানিতে ডুবে নিহত দুই শিশু শিক্ষার্থীর মর‌দেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর : গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার বোয়ালী ইউনিয়নের মদনখালি গ্রামে বুধবার দুপুরে স্কুল থেকে ফেরার তুরাগ নদীর পানিতে পড়ে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের ৬ ঘন্টা পর ওইদিন সন্ধ্যায় বোয়ালী গ্রামের ঘনপাড়া খেয়া ঘাট এলাকা থেকে দুই ক্ষুদে শিক্ষার্থীর মর‌দেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলো, বোয়ালী ইউনিয়নের মদনখালি গ্রামের নুর হোসেনের ছেলে জাহিদ হোসেন আরিফ (৭) ও একই গ্রামের আনোয়ার হোসেন ছেলে পারভেজ হোসেন রুহিদ (৫)। আরিফ বোয়ালি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্র ও রুহিদ প্রাক প্রাথমিক শ্রেণির ছাত্র।

এলাকাবাসী ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, আরিফ ও রুহিদ বুধবার সকালে বোয়ালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষা দেওয়ার জন্য স্কুলে যায়। বিদ্যালয়ের গণিত ও সংগীত, শারীরিক শিক্ষা পরীক্ষা শেষে তারা বাড়ী ফেরার পথে বোয়ালী গ্রামের ঘনপাড়া খেয়া ঘাটে আসে। সেখানে খেয়া নৌকার মাঝি না থাকায় ওই দুই ক্ষুদে শিক্ষার্থী তাদের স্কুল ড্রেস ও ক্লিপ বোর্ড একটি ভাঙ্গা কোষা নৌকায় রেখে তুরাগ নদীর পানিতে গোসল করতে নামেন। তুরাগ নদীতে নামার সঙ্গে সঙ্গে ওই দুই ক্ষুদে শিক্ষার্থী পানিতে তলিয়ে যায়। এক ঘন্টা পরে খেয়ার মাঝি ঘাটে এসে দেখতে পায় দুই স্কুল শিক্ষার্থীর স্কুল ড্রেস ও ক্লিপ বোর্ড একটি ভাঙা কোষা নৌকায় থাকলেও তাদের দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না।

এ বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য বাদল মিয়াকে জানানো হলে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই দুই শিক্ষার্থীকে খুঁজতে থাকেন। এদিকে বিকেল হওয়ার পরও মদনখালি গ্রামের দুই ক্ষুদে শিক্ষার্থী বাড়ী না ফেরার এলাকায় ঘটনাটি জানা জানি হয়। পরে ঘনপাড়া খেয়া ঘাটে শত শত এলাকাবাসী জড়ো হয়ে ক্ষুদে দুই শিক্ষার্থীদের খুজঁতে শুরু করে। পরে বুধবার সন্ধ্যায় দিকে এলাকাবাসী ঘনপাড়া খেয়া ঘাটের একশত গজ ভাটির দিকে নিহত দুই শিক্ষার্থীর লাশ ভাসমান লাশ উদ্ধার করেন।

এ ব্যাপারে বোয়ালি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোতালেব হোসেন জানান, ওই দুই শিক্ষার্থী পরীক্ষা শেষে বাসায় চলে যায়। বিকেলে দিকে খবর পাই তাদের দুই জনের মর‌দেহ তুরাগ নদী থেকে উদ্ধার করেছে। আমরা তাদের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাই।