খেলা-ধুলা

কঠিন পরীক্ষায় পড়বে অস্ট্রেলিয়া!

ঘরের মাটিতে গত দুই বছর ধরেই সত্যিকারের বাঘ হয়ে উঠেছে বাংলাদেশ। দেশের বাইরে নিউজিল্যান্ড ও ভারতের বিপক্ষে টেস্ট হারলেও ঘরের মাটিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট জিতেছে বাংলাদেশ। এখন বাংলাদেশের দিকে নজর আছে গোটা ক্রিকেট বিশ্বের। আসন্ন অস্ট্রেলিয়া সিরিজে কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে প্রস্তুত। সাবেক অজি কিংবদন্তি ইয়ান চ্যাপেলও মনে করছেন, বাংলাদেশ সফর কঠিন হতে যাচ্ছে স্মিথ-ওয়ার্নারদের জন্য।

আসন্ন দুই টেস্টের সিরিজে বাংলাদেশকে হারাতে না পারলে টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে নিচে নেমে যাওয়ার ঝুঁকিতে আছে অস্ট্রেলিয়া। আইসিসি টেস্ট র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষ স্থান পুনরুদ্ধারের সম্ভাবনা নিয়ে এ বছরের শুরুর দিকে স্টিভ স্মিথের দল ভারত সফর করেছিল। কিন্তু সেটা সম্ভব হয়নি। এবার আগামী ২৭ আগস্ট শুরু হওয়া দুই টেস্টের সিরিজে বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করতে না পারলে র‌্যাংকিংয়ের ৬ষ্ঠ স্থানে নেমে যাবে অস্ট্রেলিয়া। সেক্ষেত্রে কেবলমাত্র শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, বাংলাদেশ এবং জিম্ববুয়ের উপরে থাকবে তারা। যা আসন্ন অ্যাশেজ সিরিজে স্মিথের দলের জন্য দারুণ প্রভাব ফেলতে পারে।

সর্বশেষ ২০১১ সালে চিটাগাং টেস্টে অস্ট্রেলিয়ান পেসার জেসন গিলেস্পি ডাবল সেঞ্চুরি করলেও বাংলাদেশ দল এখন আর সে অবস্থাতে নেই। গত বছর নিজ মাঠে ইংল্যান্ডকে হারানো বাংলাদেশকে এখন আর খুব সহজেই হারানো সম্ভব নয়। চ্যাপেল বলেন, ‘বাংলাদেশ সফরটা অস্ট্রেলিয়ার জন্য কঠিন হবে এবং আমি মনে করি, অস্ট্রেলিয়া দলও এমনটাই বিশ্বাস করে। অবশ্যই সফরটা খুব সহজ হবে না। ‘

সদ্য শেষ হওয়া দেনা-পাওনা বিতর্ক খুব বেশি প্রভাব ফেলতে পারবে বলেও মনে করছেন না সাবেক এ তারকা ক্রিকেটার। তিনি বলেন, ‘দেনা-পাওনা বিতর্কের কারণে সফরটা খুব কঠিন হবে তা নয়, এটা কঠিন হবে বাংলাদেশের কন্ডিশনের জন্য এবং গত দেড় বছর বাংলাদেশ সত্যিকারার্থেই যথেষ্ট উন্নতি করেছে। এটা একটা কঠিন সফর হবে। বাংলাদেশকে হালকাভাবে নেওয়ার কোনো অবকাশ নেই। আর নিজ মাঠে ওদের বিপক্ষে বিশ্বের যেকোনো দলকেই নিজেদের সেরাটা দিতে হবে। ‘

বোর্ডের সঙ্গে চুক্তি না হলে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররা বাংলাদেশ সফর বয়কটের হুমকি দিয়ে রেখেছিল। দেনা-পাওনা সমস্যার সমাধান হওয়ার পর এটাই হবে অস্ট্রেলিয়া দলের প্রথম সফর। ৪ মাস আগে ভারত সফরে জার টেস্টের সিরিজে পরাজিত হওয়ার পর থেকেই স্মিথ এবং তার দলের অধিকাংশ সদস্য লংগার ভার্সনের বাইরে আছে। গত মাসে নির্ধারিত দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য টেস্ট দলের কয়েকজন সদস্যকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। কিন্তু ক্রিকেটারদের বয়কটের কারণে সে সফর বাতিল হয়ে যায়।

দেনা-পাওনা বিতর্ক সম্পর্কে জানতে চাইলে অস্ট্রেলিয়া কোচ ড্যারেন লেহম্যান স্থানীয় ট্রিপল-এম রেডিওকে বলেন, ‘সমস্যাটা দীর্ঘায়িত হোক কোনো পক্ষই সেটা চায় না। একজন কোচ হিসেবে আপনিও চাইবেন দ্রুত সমস্যাটা মিটে যাক। এটা কি কিছুটা হতাশার ছিল না? তবে অবশ্যই একত্রিত হয়ে মাঠে ফিরছে। এখন আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ হচ্ছে কিছু ভালো ক্রিকেট খেলা, ভক্তদের আনন্দ দেওয়া এবং দলের প্রতি তাদের সমর্থন ফিরিয়ে আনা। ‘

গত ফেব্রুয়ারিতে ভারত সফরে পুনে টেস্টে একমাত্র জয় ছাড়া এশিয়ার মাটিতে ৯ টেস্টে হারতে হয়েছে অস্ট্রেলিয়াকে। ভাল প্রতিদ্বন্দ্বিতা সত্ত্বেও ভারতের কাছে ২-১ ব্যবধানে হারের লজ্জা পেতে হয়েছে স্মিথের দলকে।