লাইফ স্টাইল স্বাস্থ্য

ওজন নিয়ে ভাবছেন? ১ চামচ জিরায় কমবে ১৫ কেজি ওজন!

জিরা, ইংরেজিতে যা কিউমিন নামে পরিচিত। আমাদের দেশে ও অনান্য দেশে যা মসলা হিসেবেই রান্নার কাজে ব্যবহার হয়। তবে আপনি জেনে অবাক হবেন এই মসলায় ওজন কমানোর জন্য ইউনিক পাওয়ার আছে। জনপ্রিয় বোল্ডস্কাই ওয়েবসাইট জানিয়েছে, প্রতিদিন জিরা খাওয়ার মাধ্যমে মাত্র ২০ দিনে পেটের মেদ কমানো সম্ভব।

এ ছাড়াও প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় জিরা রাখলে পুরো শরীর থেকে মেদ রিডিউস করা সম্ভব।

বোল্ডস্কাই ওয়েবসাইটের দেওয়া তথ্যনুযায়ী, ৮৮জন নারীর উপর করা একটি রিসার্চে প্রমাণিত হয়েছে যে, জিরা মেদ কমানোর জন্য খুবই কার্যকর। জিরা শরীরের মেটাবলিজম র‍্যাট বাড়িয়ে দ্রুত ক্যালোরি বার্ন করে সাহায্য করে।মেদ কমানো ছাড়াও জিরার রয়েছে স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারিতা। এটা শরীরের খারাপ কলেস্টোরল কমায়, হার্ট আট্যাকে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কমায়, স্মৃতিশক্তি বাড়ায়, শ্রীরের ইমিউনিটি দ্বিগুন করে, এনামিয়া রোধ করে ও গ্যাসের সমস্যা থেকে রক্ষা করে।
জনপ্রিয় ইংরেজি ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাই এ ওজন কমাতে জিরার বিভিন্ন ব্যবহার সম্পর্কে বলা হয়। জিরা মাত্র ১৫ দিনে পেটের মেদ কমাতে খুবই কার্যকর পদ্ধতি। খাওয়া বা পানীয় হিসেবে প্রতিদিন জিরার গুঁড়া খেলে দেখতে পাবেন এর যাদুকরী ফলাফল।
জেনে নিন ওজন কমাতে কীভাবে জিরা ব্যবহার করবেন।

ওজন কমাতে জিরা পানীয় :
২ টেবিল চামচ আস্ত জিরা এক গ্লাস পানিতে সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। সকালে ওই পানি ফুটিয়ে নিন। পানি ছেঁকে জিরা সরিয়ে নিন ও অর্ধেক লেবুর রস মেশান। দ্রুত মেদ কমানোর জন্য এই পানি প্রতিদিন সকালে পান করুন একটানা দুই সপ্তাহ।

ওজন কমাতে টকদই ও জিরার গুঁড়া :
এক চা চামচ জিরার গুঁড়া ৫ গ্রাম টকদইয়ের সাথে মিশিয়ে নিন। প্রতিদিন এই জিরা টকদইয়ের মিশ্রণ খান। ওজন কমাতে জিরা দিয়ে তৈরি করুন বিভিন্ন খাবারে মেন্যু।
এক গ্লাস পানিতে তিন গ্রাম জিরা পাউডারের সাথে কয়েক ফোঁটা মধু মিশিয়ে পান করুন। ভেজিটেবল সুপ্যের সাথে এক চা চামচ জিরা মিশিয়ে খেতে পারেন।
ভাত রান্না হয়ে আসার একটু আগে এর সাথে জিরা মিশিয়ে নিন। জিরা শুধু ভাতের সুগন্ধই বাড়াবে না বরং ওজন কমাতেও সাহায্য করবে।

লেবু, আদা ও জিরার মিশ্রণ :
ওজন কমাতে এটা সবচেয়ে কার্যকর। এই ওজন কমানোর খাবার বানাতে প্রথমে আদা গ্রেট(কুচিয়ে)নিন। একইভাবে সেদ্ধ গাজর ও কুচিয়ে নিন। আপনি চাইলে আরো দু এক পদের সেদ্ধ সবজি দিতে পারেন। এবার এসব উপকরণ একসাথে মিশিয়ে এর মধ্যে অল্প জিরার গুঁড়া, সামান্য লেবুর রস কুচানো আদা ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। রাতের খাবারে অন্যকিছু বাদ দিয়ে এই সালাদ খান। দেখবেন মেদ দ্রুত কমে যাবে।
জিরার এন্টিঅক্সিডেন্ট মানব দেহের মেটাবলিজমের হার বাড়ায়। এটি আমাদের দেহের ক্যালরি বার্ন করতে সাহায্য করে। পুরুষদের পেটের মেদ কমাতে জিরা খুবই কার্যকর।

গ্যাসের সমস্যা কমাতে :
জিরা খাবার হজম প্রক্রিয়ায় কার্যকর ভূমিকা রাখে। খাবার সঠিক ভাবে হজম না হলে পেটে গ্যাসের প্রবণতা বাড়ে। জিরা পাকস্থলীতে গ্যাস জমতে বাধা দেয়। খাবার দ্রুত হজম প্রক্রিয়ায় সাহায্যের মাধ্যমে এটি কাজ করে।

হার্ট এ্যাটাক থেকে রক্ষা করে জিরা :
জিরা শরীরে খারাপ চর্বি ও কলস্টোরল তৈরিতে বাধা দেয়। এভাবে জিরা শরীরের মেদ কমায় ও হার্ট এট্যাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায়।