আন্তর্জাতিক

এ নির্বাচনের ওপর নির্ভর করছে বিশ্বের ভবিষ্যৎ

obama11মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আর মাত্র চার দিন বাকি থাকতে দুই প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ভোটারদের মন জয়ের চেষ্টা তুঙ্গে উঠেছে। এমন প্রেক্ষাপটে ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের পক্ষে প্রচারে অংশ নিয়ে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, ৮ নভেম্বরের নির্বাচনের ওপর শুধু যুক্তরাষ্ট্রের নয়, বিশ্বের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে।
এদিকে এফবিআইয়ের নতুন তদন্ত নিয়ে চাপের মুখে থাকা হিলারির জন্য সুখবর হিসেবে সর্বশেষ এক জনমত জরিপে দেখা গেছে, ট্রাম্পের চেয়ে তিন পয়েন্টে এগিয়ে তিনি।
নর্থ ক্যারোলাইনা অঙ্গরাজ্যে বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ভোটারদের রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিষয়ে আবারও সতর্ক করে দেন। তবে তিনি ট্রাম্পের নাম উল্লেখ করেননি। ওবামা জোরালো ভাষায় বলেন, ৮ নভেম্বরের নির্বাচনের ওপর শুধু যুক্তরাষ্ট্রের নয়, বিশ্বের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে। তিনি বলেন, রিপাবলিকান প্রার্থী দেশের সেনাবাহিনীর সর্বাধিনায়ক হওয়ার অযোগ্য, প্রেসিডেন্ট হওয়ার যোগ্যতা তাঁর নেই। এর আগের দুটি নির্বাচনে তাঁকে দুই রিপাবলিকান প্রার্থী জন ম্যাককেইন ও মিট রমনির সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হয়েছে—এ কথা উল্লেখ করে ওবামা বলেন, তিনি একবারও ভাবেননি তাঁদের কেউ নির্বাচিত হলে বিপর্যয় নেমে আসবে। কিন্তু ট্রাম্পকে নিয়ে তিনি সেই ভয় পাচ্ছেন।
এদিকে সর্বশেষ এক জনমত জরিপে দেখা গেছে, ট্রাম্পের চেয়ে তিন পয়েন্টে এগিয়ে রয়েছেন হিলারি। যদিও অঙ্গরাজ্য পর্যায়ের জরিপে ট্রাম্প উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জন করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রকাশিত নিউইয়র্ক টাইমস ও সিবিএস নিউজের নতুন জরিপে এই মুহূর্তে হিলারির পক্ষে রয়েছেন ৪৫ শতাংশ ভোটার, ট্রাম্পের পক্ষে ৪২। অবশ্য রাজ্যপর্যায়ের জনমত জরিপে ট্রাম্প আনন্দিত হওয়ার মতো খবর পেয়েছেন। নেভাদা ও অ্যারিজোনায় তিনি এগিয়ে রয়েছেন এবং নিউ হ্যাম্পশায়ারে তাঁর ও হিলারির অবস্থান সমান সমান। তবে পেনসিলভানিয়ায় হিলারি ৪ পয়েন্টে এগিয়ে, ফ্লোরিডায় ২ পয়েন্টে। বিশিষ্ট জনমত জরিপ বিশেষজ্ঞ নেট সিলভার জানিয়েছেন, ‘ব্যাটেলগ্রাউন্ড’ নামে পরিচিত অঙ্গরাজ্যগুলোর (যেখানে দুই প্রার্থীর কারোরই স্পষ্ট জনপ্রিয়তা নেই) কোনো কোনোটিতে ট্রাম্প উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জন করেছেন। ভার্জিনিয়া, মিশিগান ও পেনসিলভানিয়ায় এই মুহূর্তে হিলারি এগিয়ে, কিন্তু ট্রাম্প তাঁর দুর্গে অনবরত আঘাত হেনে যাচ্ছেন। জয়লাভের জন্য প্রয়োজনীয় ন্যূনতম ২৭০টি ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট পেতে হলে ট্রাম্পকে ‘লাল’, অর্থাৎ রিপাবলিকানদের জন্য নিরাপদ এমন অঙ্গরাজ্যের প্রতিটি ছাড়াও হিলারির জন্য নিরাপদ বিবেচিত কোনো একটি ‘নীল’ অঙ্গরাজ্য নিজের নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। বিশেষজ্ঞ নেট সিলভার মনে করেন, আফ্রিকান-আমেরিকান ও হিস্পানিকদের মধ্যে যথেষ্ট উৎসাহ সঞ্চারে ব্যর্থ হলে পেনসিলভানিয়া বা কলোরাডোর মতো ‘নীল’ অঙ্গরাজ্যও হিলারির হাতছাড়া হয়ে যেতে পারে। সেটি তাঁর জন্য বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে।

আরও পড়ুনঃ হাওয়ায় ভাসা নয় ডুবন্ত সেতুর উপরে চলে গেল গাড়ি (ভিডিওসহ)

Advertisements

Add Comment

Click here to post a comment