বিভাগীয় সংবাদ

এবার রাজশাহীর ভদ্রখণ্ড গ্রামে রান্নাঘরে ১২৫ গোখরা!

এবার রাজশাহীর তানোর উপজেলার সদর পৌরসভা এলাকার ভদ্রখণ্ড গ্রামে মারা হলো ১২৫টি গোখরা সাপ। গতকাল বৃহস্পতিবার (০৬ জুলাই) সন্ধ্যা থেকে শুক্রবার (০৭ জুলাই) গভীর রাত পর্যন্ত সাপগুলো মারা হয়। সেগুলো ছিল সাপের বাচ্চা।

ওই গ্রামের বাসিন্দা আক্কাস আলী কালের কণ্ঠকে জানান, সন্ধ্যার পর তার স্ত্রী হাসিনা বিবি রান্না ঘরে যান। কিন্তু রান্না ঘরের মেঝেতে তিনটি গোখরা সাপের বাচ্চা দেখে তিনি চিৎকার দেন।


সাপ! সাপ! বলে স্ত্রীর চিৎকার শুনতে পেয়ে দৌড়ে রান্না ঘরে যান আক্কাস আলী। পরে তার দুই ছেলে হাসিবুর রহমান ও আজিবুর রহমানও ছুটে যান।
এ সময় বাবা ও ছেলেরা মিলে এক এক করে রান্না ঘরের কোনায় থাকা ইঁদুরের গর্ত থেকে বেরিয়ে আসা গোখরা সাপ মারতে থাকেন। পরে খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন গিয়ে তাদের সঙ্গে বিষধর গোখরা সাপ নিধন অভিযানে যোগ দেন। সন্ধ্যা থেকে রাত ১টা পর্যন্ত সবমিলিয়ে ১শ’ ২৫টি সাপ মারেন তারা।
আক্কাস আলী আরও জানান, সাপগুলো মারার পর গর্ত খুঁড়ে পাওয়া যায় আরও ১৩টি সাপের ডিম পাওয়া যায়। এ সময় ডিমগুলোও ভেঙ্গে ফেলা হয়। সাপগুলো লম্বায় প্রায় এক থেকে দেড় ফুট লম্বা হবে।
কতগুলো আরও ছোট। মনে হচ্ছে কেবলই ডিম থেকে বেরিয়েছে। পুরনো মাটির বাড়ি হওয়ায় ইঁদুরের গর্তে ঢুকে ডিম পেড়ে বাচ্চাগুলে ফুটিয়েছে মা গোখরা।
এই নিয়ে রাত থেকে চরম আতঙ্কের মধ্যে নির্ঘুম রাত কাটিয়েছেন তারা। ভোরে আশপাশের গ্রামে খবরটি ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।
এর আগে গত মঙ্গলবার (০৪ জুলাই) রাত ১২টার দিকে রাজশাহী মহানগরীর বুধপাড়া এলাকার মাজদার আলীর শোয়ার ঘরে এক এক করে মারা হয় ২৭টি গোখরা সাপ। ওই বাড়িটিও পুরোনো মাটির বাড়ি। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই বাড়ির শোবার ঘরে ফের একটি সাপ মারা হয়।



সর্বশেষ খবর