গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

এবার আতঙ্ক ছড়াচ্ছে প্লাস্টিকের চিনি!

হুবহু চিনির মতো দেখতে। তবে তা সাধারণ চিনি নয়। চায়ে দিলেও তা মিষ্টি হয় না। এই প্লাস্টিক চিনিই বিক্রি হচ্ছে ভারতের বেঙ্গালুরুর বাজারে। আর তা নিয়েই ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক।

কিছুদিন আগেই ছড়িয়েছিল প্লাস্টিক ডিমের আতঙ্ক। যেখানে ডিম ভাজতে গেলে তা প্লাস্টিকের মতো গুটিয়ে যাচ্ছিল। বেরচ্ছিল প্লাস্টিক পোড়া গন্ধও। এরপর উত্তরাখণ্ড ও হায়দরাবাদে প্লাস্টিক চাল বিক্রির অভিযোগ ওঠে। চটচটে চাল গায়ে গায়ে লেগে এমন শক্ত হয়ে জমাট বেঁধেছিল যে বাচ্চারা তা নিয়ে ক্রিকেটও খেলেছে।

ঘটনার তদন্তে নেমেছে হায়দরাবাদ পুলিশ। পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে অযথা ভয় না পেয়ে শান্ত থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছিল। তার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার ছড়াল প্লাস্টিক চিনির আতঙ্ক। নকল চিনিতে ছেয়ে গেছে বেঙ্গালুরুর বাজার।

এর আগেও ভারতীয় বাজারে চীনের কৃত্রিম চাল, ডিম বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। চীনা বাজার থেকেই এ ধরনের কৃত্রিম জিনিস ভারতে ঢুকিয়ে দেয়া হচ্ছে বলেই তাদের অভিযোগ। যদিও এই কৃত্রিম জিনিস তৈরির খরচ অনেকটাই বেশি।

প্লাস্টিক চিনির আতঙ্ক ছড়াতেই প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়েছে সাধারণ মানুষ। সাধারণ মানুষ ক্রমাগত প্রতারিত হচ্ছেন। সরকারি দপ্তর যেন সুরক্ষার ব্যবস্থা করে, এই দাবি আম আদমির। অভিযোগ, কোনো কোনো ক্ষেত্রে রেশনেও এই ধরনের চিনি দেয়া হচ্ছে।

দেখা যায়, এই ধরনের চিনির দানা বেশ মোটা মোটা হয়। মুখে দিলেও সাধারণ চিনির মতো মিষ্টি লাগে না। চা বা গরম পানিতে চিনি দিলেও ঠিকঠাক মিষ্টি হয় না, সেক্ষেত্রে অনেকটা চিনি ঢালেও ফল পাওয়া যাচ্ছে না। আর এই ধরনের চিনিতে মাছি, মৌমাছি বা পিঁপড়া আসে না। আপনার বাজারেও নকল চিনি বিক্রি হচ্ছে কিনা, তা এই লক্ষণগুলো মিলিয়েই বুঝে নিতে পারবেন।