খেলা-ধুলা ভিডিও

এটাই কি শতাব্দীর সেরা গোল মিস?ভাইরাল সোশাল মিডিয়ায় (ভিডিও)

goal-missফুটবল। ৯০ মিনিটের খেলায় প্রতি মুহূর্তে বদলায় পরিস্থিতি। আবহানী হোক বা মহামেডান, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বা বার্সেলোনা। প্রিয় ক্লাব যখন ফুটবল খেলে, তখন চোখ ফেরাতে পারেন না অনুরাগীরা। একটা মিসের অর্থ যে কী হতে পারে, তা গ্যালারিতে থাকলে বেশ বোঝা যায়।

আপনি কি ফুটবল সমর্থক! যদি ফুটবলকে সামান্যতম ভালোবাসেন, তবে মাফ করতে পারবেন না এই ফুটবলারকে। এবার এমন এক গোল মিস করার ভিডিও সামনে এসেছে, যা দেখে ঘরে বসেও হাত কামড়াতে বাধ্য যে কোনও ফুটবলপ্রেমী।

বলা হচ্ছে, এটা নাকি শতাব্দীর সেরা গোল মিসের তালিকায় চলে আসতে পারে। জানেন কবে, কোথায় হয়েছিল এই ম্যাচ !

গ্যালারিতে উন্মত্ত দর্শক। মাত্রাছাড়া উচ্ছ্বাস। গোটা স্টেডিয়াম জুড়ে জয়গান। এক সুরে বিরোধিতা। বিশ্বের এক একটি ফুটবল মাঠে আবহ দেখলেই জীবন সার্থক। জনপ্রিয়তার নিরিখে তাই অনেক এগিয়ে ফুটবল। প্রাথমিক ফুটবল পদ্ধতি বোঝে না, এমন দেশ খুব কম।

সার্বিয়ার এক ছোট্ট লিগের ঘটনা। ফুটবল ইতিহাসে এমন অনেক ঘটনা আছে। কেউ বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে গোল মিস করেন। আবার কেউ করেন ক্লাব ফুটবলের ডার্বিতে। এখানে এক সামান্য লিগ ম্যাচে ঘটল সেই ঘটনা।

গোলকিপার নেই। স্ট্রাইকার একা গোলের সামনে, পায়ে বল। মাত্র দুই গজ দূর থেকে গোল মিস করলেন লোকোমোটিভ এফসি ক্লাবের ফুটবলার জুরিসিচ। বেলগ্রেড জ়োনের লিগ ম্যাচে খেলতে নেমেছিল এই ফুটবল ক্লাব।

লোকোমোটিভ ক্লাব বেশ দাপটের সঙ্গেই খেলছিল ম্যাচটিতে। হঠাৎ করেই একটা পাস আসে। যা থেকে বল রিসিভ করেন জুরিসিচ। একজন ডিফেন্ডার ও গোলকিপারকে কাটিয়ে বল নিয়ে পৌঁছে যান গোল লাইনের ঠিক সামনে। গোল তখন ফাঁকা। কিন্তু বাঁ-পায়ে শট নিতে গিয়ে মিস করেন জুরিসিচ। এমন মিস ভাবা যায় না।

মাত্র দু’গজ দূরত্ব, যেখান থেকে কোনও বাচ্চা ছেলেও গোল দিতে পারে। সেখান থেকে মিস করে ফেলেন জুরিসিচ। ম্যাচের ফলাফল ছিল ২-১। লোকোমোটিভ জেতায় টিমে কোনও প্রভাব পড়েনি। কিন্তু এখান থেকে একজন পেশাদার ফুটবলার কীভাবে মিস করেন ! ভিডিও দেখার পরে তা এখন ভাইরাল সোশাল মিডিয়ায়।

এখানে ক্লিক করে ভিডিওতে দেখুন।

Add Comment

Click here to post a comment