বিনোদন

এও কি সম্ভব; এক পা নিয়েই নাচছেন নীলম

‘শিল্পীর মধ্যে লুকিয়ে থাকা অদম্য ইচ্ছাশক্তি থেকেই সৃষ্টি হয় শিল্পের। ’ বক্তা অ্যালবার্ট আইনস্টাইন।

‘প্রত্যেক শিশুর মধ্যেই শিল্প লুকিয়ে থাকে, কিন্তু শিল্পী হিসেবে বড় হওয়াটাই চ্যালেঞ্জ। ’ উক্তি পাবলো পিকাসো’র। শিল্প ও শিল্পীকে নিয়ে এমনই বহু অমর উক্তির সন্ধান মেলে। তবে শুধু শব্দে নয়, বাস্তব জীবনেও উজ্জ্বল অস্তিত্ব রয়েছে এমন মানুষের। যাঁরা প্রতিবন্ধকতার ঊর্ধ্বে উঠে নিজের শিল্পীসত্তাকে প্রতিষ্ঠা করেছেন। এমনই একজন হলেন নেপালের নীলম ধুঙ্গানা।

শৈশব থেকেই অভিনেত্রী হওয়ার ইচ্ছা। ভীষণ ঝোঁক ছিল নাচের প্রতিও। গুণবতী ও সুন্দরী নীলম যে বিনোদনের দুনিয়ায় সুপ্রতিষ্ঠিত হবেন, তা নিয়ে নিশ্চিত ছিল পরিবারও।

কিন্তু, মাত্র ১৫ বছর বয়সে এক দুর্ঘটনায় পা হারান নীলম। রাস্তার একধার দিয়ে হেঁটে চলা নীলমকে উড়িয়ে দেয় বেপরোয়া এক গাড়ি। দুর্ঘটনার পরের দিনই পা কেটে বাদ দিতে হয়। এরপর অনেকটা সময় নিজেকে ঘরবন্দি করে নেন নীলম। পরিবার, বন্ধুদের আশ্বাস, সমর্থনও মলমের কাজ করতে পারেনি।

কিন্তু, শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে এভাবে নিজের দীর্ঘদিনের স্বপ্নকে চুরমার করতে দেননি নীলম। অদম্য মনের জোর ও নাচের প্রতি আত্মিক ভালোবাসাই তাঁর ইচ্ছাকে পরিস্ফুট করেছে। ৫ বছরের চেষ্টার পর আজ এক পায়েই নেপালের তারকা নৃত্যশিল্পী নীলম ধুঙ্গানা।

ভীমা খটিওয়াড়া ও মীনা আচার্য– শারীরিক প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে নাচের দুনিয়ায় সাফল্য পাওয়া এই দুই নামও অনুপ্রাণিত করে নীলমকে। এবং এনাদের সংস্রবে এসেই বিশ্ব প্রতিবন্ধী দিবসে নজরকাড়া পারফরমেন্স করেন নীলম। এরপর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি। আজ নেপালের অন্যতম পরিচিত মুখ নীলম ধুঙ্গানা।

মুখে মিষ্টি হাসি, আর মনে অদম্য ইচ্ছাশক্তি নিয়েই সাফল্যকে ছুঁয়ে চলেছেন তিনি। সূত্র: এই সময়

ভিডিওঃ মেয়েদের মারামারি দেখুন অস্থির মারামারি

Add Comment

Click here to post a comment