বিনোদন

উত্তরায়ণের ‘চলার পথে’ শুক্রবার

1রবীন্দ্রসংগীত চর্চার সংগঠন উত্তরায়ণের ষষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় গীতি আলেখ্য ‘চলার পথে’আয়োজন করেছে সংগঠনটি। সংগঠনের পরিচালক, রবীন্দ্রসংগীতের বিশিষ্ট শিল্পী লিলি ইসলাম এই আয়োজন নিয়ে কথা বললেন

উত্তরায়ণের এবারের অনুষ্ঠানের ভাবনা ‘চলার পথে’ কেন?

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কিন্তু প্রচুর ভ্রমণ করেছেন। এই যেমন ট্রেনে, জাহাজে, নৌকায়, পালকিতে কিংবা গরুর গাড়িতে। পথে যেতে যেতে তিনি অনেক গান রচনা করেছেন। শুক্রবারের অনুষ্ঠানে আমরা এরকম কিছু গান করব। এই গানগুলোতে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে অন্যভাবে তুলে ধরার প্রয়াস থাকবে আমাদের।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সব গানের পেছনেই একটা করে গল্প আছে।

ঠিক বলেছেন। একবার তিনি যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাচ্ছেন। জাহাজে। আটলান্টিকে সে কী ঝড়! সবাই সৃষ্টিকর্তাকে স্মরণ করছেন, আর রবীন্দ্রনাথ তখন লিখেছিলেন ‘ভুবনজোড়া আসনখানি’গানটি। এই যে তাঁর অটল থাকা, অবিচল থাকা, যখন পড়েছি তখন এই ব্যাপারটি আমার কাছে দারুণ লেগেছে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর যেসব দেশ ভ্রমণ করেছেন, সেসব দেশে কিন্তু এখনো তাঁর স্মৃতিচিহ্ন পাওয়া যায়।

তিনি হাঙ্গেরি সফরে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের যে কক্ষে রেখে তাঁর চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল, সেই কক্ষটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এখনো সংরক্ষণ করে রেখেছেন দর্শনার্থীদের জন্য। কবির প্রতি এভাবে অনেকেই শ্রদ্ধা প্রদর্শন করেছেন।

শুক্রবারের অনুষ্ঠানে কী কী থাকছে?

গান থাকছে ১৭টি। গানগুলোতে কণ্ঠ দেবেন উত্তরায়ণের শিল্পীরা। থাকছি আমি আর হিমাদ্রী শেখর। রবীন্দ্ররচনা থেকে পাঠ করবেন ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায় ও ডালিয়া আহমেদ। অনুষ্ঠানে যন্ত্রাণুষঙ্গে থাকছেন কলকাতার বাদ্যযন্ত্রশিল্পী বিপ্লব মণ্ডল (তবলা), সুব্রত মুখোপাধ্যায় (কি বোর্ড), সন্দিপন গাঙ্গুলী (বেহালা) আর সৌম্যজ্যোতি ঘোষ (বাঁশি)। থাকছেন ঢাকার শিল্পী নাজিমউদ্দিন রাজু (অক্টোপ্যাড)। অনুষ্ঠানটির পরিকল্পনা, গবেষণা আর পরিচালনা আমিই করছি। সেট আর লাইটের ডিজাইন করছেন নসিরুল হক খোকন। যন্ত্রানুষঙ্গ পরিচালনা করছেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়।

Add Comment

Click here to post a comment