বিনোদন

`আমি যা কিছু বলেছি সব মিথ্যা`

এবার নিজেকে মানসিকভাবে অসুস্থ দাবি করেছেন জনপ্রিয় নায়ক সালমান শাহ হত্যা মামলার অন্যতম আসামি এক সময়ের বিউটিশিয়ান যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী রাবেয়া সুলতানা রুবি।

বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার দেয়া দ্বিতীয় ভিডিওতে এমনটা দাবি করেন রুবি।

এর আগে গত সোমবার সালমান শাহ’র মৃত্যু নিয়ে ফেসবুকে দেয়া তার একটি ভিডিও আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসে।

ওই ভিডিওতে তিনি দাবি করেছিলেন, ‘সালমান শাহ আত্মহত্যা করেনি, তাকে খুন করা হয়েছিল। আমার স্বামী তার খুনের সঙ্গে জড়িত। এটা সামিরার (সালমান শাহ’র স্ত্রী) ফ্যামিলি করাইছে আমার হাজবেন্ডকে দিয়ে, সবাইরে দিয়ে, সব চাইনিজ মানুষ ছিল। সালমান শাহ আত্মহত্যা করে নাই, সালমান শাহ খুন হইছে। এই খুনের বিষয়ে আমি সব জানি। যেভাবেই হোক আবার যেন মামলা তদন্তের ব্যবস্থা করা হয়। আমি যেমন করেই হোক আদালতে সাক্ষী দেব।’

এই ভিডিও ফেসবুকে দেয়ার দুইদিন পর বুধবার সকালে আরেকটি ভিডিও দেন রুবি।

যেখানে আগের ভিডিওতে দেয়া বক্তব্য থেকে সরে আসেন রুবি। রুবি দ্বিতীয় ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘আমি বলব না যে এটা আত্মহত্যা বা হত্যা। এটা আমার বলা উচিত না। আমি আগেরবার যেটা বলেছি ভিডিওতে সেটাতে আমার ভুল (রং) ছিল। আমি ইমোশনাল ছিলাম বেশি, যার জন্য আমি বলেছিলাম হত্যা। হত্যা নাকি আত্মহত্যা এটা সামিরা এবং তার বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে বের হবে।’

এরপরই আরও একটি ভিডিও ফেসবুকে দেন রুবি।

যেখানে তিনি বলেন, গত দুই সপ্তাহ ধরে আমি মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলাম। এক সপ্তাহে কানাডাতে আরেক সপ্তাহে ফিলাডেলফিয়াতে ছিলাম। আমি যা কিছু বলেছি এটার কোনোই মূল্য নাই। আমি প্রমাণ দিব যে- আমি মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলাম। আমার হাসপাতালের কাগজ আছে। আমি বাসায় গিয়ে পৌঁছে দেব। একা থাকি তো, এ জন্য কিছুটা মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে। হাজবেন্ডের সঙ্গে কথা বলে বুঝলাম যা ওরা সবাই আমাকে নিয়ে কষ্ট পাচ্ছে। আমার বাচ্চা আমাকে এক মাসের জন্য হাসপাতালে যেতে বলেছে। যা কিছু হয়েছে তার জন্য সত্যিই আমি দুঃখিত।

তিনি আরও বলেন, একাকী বসে বসে এসব ভাবতাম। যা বলেছি সব মিথ্যা কথা। যা কিছু বলেন কিছু যাই আসে না, কারণ আমি অসুস্থ। তোমরা গালিগালাজ দিলে কী হবে, আমারে তো পাবা না, আমি তো আমেরিকায় থাকি। আমি কিচ্ছু জানি না। পল্টিবাজ বলতে পারেন আমাকে। যা খুশি বলতে পারেন। আমার কিচ্ছু যায় আসে না। আমি কিছুই জানি না। এটা খুন হতে পারে বা আত্মহত্যা হতে পারে।

এসময় ভিডিও কমেন্টে রুবিকে খুনি বলা হলে এর জবাবে তিনি বলেন, আমি খুনি-প্রমাণ কর। কীভাবে করবা, আমি কিন্তু বাংলাদেশি না আমেরিকান সিটিজেন। আমাকে কোথা থেকে গ্রেফতার করবে, আসুক না। কে আসবে এফবিআই আসবে। আমার বাড়ির কাছে পুলিশ স্টেশন। আসুক না।

সামিরার ব্যাপারে যা বলেছি, তা মিথ্যা কথা- এগুলা মস্তিষ্কের কাহিনী। আমি প্রত্যেকটা জিনিস বানিয়ে বলেছি। আমার কিচ্ছু করতে পারবে না। আমি বাংলাদেশে আসলে তো। বাংলাদেশে যাওয়ার কোনো ইচ্ছা আমার নাই।

সালমান শাহ ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর মারা যান। তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে পুলিশকে জানান তার স্ত্রী সামিরা। কিন্তু সালমান শাহের পরিবার একে হত্যা বলে আসছিল। সালমান শাহের মৃত্যুর পর তার বাবা কমর উদ্দিন চৌধুরী একটি অপমৃত্যু মামলা করেন। বিভিন্ন সংস্থা এ মামলার তদন্ত করেছে। ওই সময় সালমানের মা নীলা চৌধুরী আদালতে পিটিশন দায়ের করে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে বলেন, তারা হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। এ নিয়ে আলাদা কোনো মামলা হয়নি। ওই পিটিশনে রুবি ৬ নম্বর আসামি।

তবে গত দুই দশকেও এ মামলার রহস্য উদঘাটন হয়নি। পুলিশ দুই দফা ময়নাতদন্ত করে একে আত্মহত্যাই বলেছিল। কিন্তু নারাজি দিয়েছে সালমান শাহের পরিবার। মামলাটির বিচার বিভাগীয় তদন্তও হয়েছিল। এখন মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পিবিআইয়ে রয়েছে।