জাতীয়

‘আমাকে একঘণ্টা ঘুমাতে না দিলে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে’

‘স্বামী আর স্ত্রী বানায় যেজন মিস্ত্রী, সে বড় আজব কারিগর…’ যখনই স্বামী আর স্ত্রীর মধ্যে প্রেম দেখি, তখনই ‘আম্মাজান’ সিনেমার এই গানটি মনে পড়ে যায়। আচ্ছা, সময় পার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কী স্বামী স্ত্রীর প্রেমে ভাটা পড়ে? ধীরে ধীরে কমতে থাকে আগ্রহ? কী জানি! তবে কণ্ঠশিল্পী সুজিত মোস্তফা ও নৃত্যশিল্পী মুনমুন আহমেদ এর দাম্পত্য জীবন দেখলে মনে হয়- স্বামী স্ত্রীর মধ্যে সম্পর্ক কখনই পুরনো হয়ে যায় না, বর্ণীল আনন্দ ফিকে হয়ে আসে না দাম্পত্য জীবনের বহুদিন পেরিয়ে গেলেও।

তাদের দাম্পত্যে সুখের নজির দেখা গেলো সুজিত মোস্তফার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে। সুজিত যখন নিজের গানের ঘরে ছিলেন, তখন পাশের ঘর থেকে স্ত্রী মুনমুন মেসেঞ্জারে লিখে পাঠালেন- ‘আমাকে একঘণ্টা ঘুমাতে দিলে খুশি হব। না দিলে যে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার জন্য দায়ী থাকবে তুমি’।

সুজিত মোস্তফার ফেসবুক স্ট্যাটাসের স্ক্রিনশট।

উল্লেখ্য, সুজিত মোস্তফা হচ্ছেন বিশিষ্ট নজরুল সঙ্গীত শিল্পী এবং নজরুল গবেষক। তিনি প্রয়াত শিক্ষাবিদ, কবি এবং লেখক আবু হেনা মোস্তফা কামালের পুত্র। আর মুনমুন আহমেদ হচ্ছেন বাংলাদেশের একজন প্রথিতযশা নৃত্যশিল্পী। ১৯৯৩ সালের ৩ জুলাই তারিখে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন।  প্রিয়. কম

সুজিত-মুনমুন।