লাইফ স্টাইল স্বাস্থ্য

আপনি কি বাড়িতে প্রেশার মাপেন? সাবধান! জানুন বিস্তারিত..

বাড়িতে রক্তচাপ মাপার যন্ত্র আছে? দিব্যি ব্যবহারও করেন? এবার থেকে রক্তচাপ মাপার যন্ত্র ব্যবহার করার আগে দুবার ভাবুন। বলছেন কানাডার অ্যালবার্টা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক অধ্যাপক জেনিফার রিংরোজ। কেন বলছেন এরকম?
বিশ্ববিদ্যালয়ের করা একটি সমীক্ষা বলছে, বাড়িতে রক্তচাপ মেপে ওষুধ খেলে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। কারণ দেখা ড়েছে, এই ধরনের পরীক্ষার ৭০ শতাংশই ভুল তথ্য দেয়। বিশেষত, উচ্চ রক্তচাপের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। ফলে তার ওপর ভিত্তি করে যদি কেউ ওষুধ খান, তার শরীরে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে বাধ্য। কোনো কোনো ক্ষেত্রে এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার দরুণ জীবনহানিরও আশঙ্কা থাকে।

৮৫ জন রোগীর ওপর পরীক্ষা চালিয়ে দেখা গিয়েছে, ৭০ শতাংশ ক্ষেত্রে রিপোর্ট ভুল দিচ্ছে বাড়িতে রাখা রক্তচাপ মাপার যন্ত্র। বাড়ির রিপোর্ট নিয়ে চিকিৎসকের কাছে গেলেই ধরা পড়ছে পার্থক্য। কোথাও কোথাও আবার চিকিৎসকের পরামর্শও নেয়া হচ্ছে না। নিজের চিকিৎসা নিজেই করতে গিয়ে বিপদ ডেকে আনছেন মানুষ।

উচ্চ রক্তচাপ এমন এক রোগ, যা মানুষের শরীরে আরো রোগের জন্ম দেয়। নিয়মিত পর্যবেক্ষণ প্রয়োজন এই ধরণের রোগীদের। ফলে বাড়িতে বসে রক্তচাপ মাপা সহজ ও পকেটবান্ধব হলেও, ভবিষ্যতের জন্য মোটেও তা সুখকর নয় বলে সতর্ক করছেন গবেষকরা। বাড়িতে রাখা যন্ত্রগুলির পারদের দাগ বেশিরভাগ সময়েই ৫ মিলিমিটারের মধ্যে থাকে, আর ৩০ শতাংশ ক্ষেত্রে থাকে ১০ মিলিমিটারের মধ্যে। এবার আপনি বিচার করুন পকেটবান্ধব ও সময় বাঁচিয়ে বাড়িতেই রক্তচাপ মাপবেন, নাকি, শরণাপন্ন হবেন চিকিৎসকের।

সমীক্ষা আরো বলছে মহিলাদের থেকে পুরুষদের রক্তচাপের ফলে তারতম্য বেশি আসে। এর কারণ হিসেবে গবেষকরা বলছেন বাড়ির পরিবেশ, রক্তচাপ নেয়ার সময় বসার অবস্থান এই পার্থক্যগুলো গড়ে দেয়। অতএব সাবধান।

Advertisements





সর্বশেষ খবর