খেলা-ধুলা

আজ বিপিএল সাকিব বনাম তামিম লড়াই।

tamim-shakibঢাকা পর্বের ১ম পর্যায়ের খেলা শেষে বিপিএল এখন বন্দর নগরী চট্টগ্রামে। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে প্রথম ম্যাচে লড়বে ঢাকা ডায়নামাইটস ও চিটাগাং ভাইকিংস। ম্যাচটি শুরু হবে দুপুর একটায়।
চট্টগ্রাম পর্বে ১ম ম্যাচেই মাঠে নামছে স্বাগতিক চট্টগ্রামের ফ্রাঞ্চাইজি চিটাগং ভাইকিংস। হারের বৃত্ত থেকে যারা বেরোতেই পারছে না। ১ম ম্যাচে অর্ধ শতকের পর অধিনায়ক তামিমের ব্যাট কিছুটা তন্দ্রাচ্ছন্ন ছিলো, শেষ ম্যাচে বরিশালের সাথে ৭৫ রানের ইনিংস খেলে তিনি ব্যাটকে জাগিয়ে তুললেই দল হেরে গেছে। তামিম নিজেও চিটাগং-এর এমন হারে হতাশ।
“আমরা এক নম্বরে আছি। এই স্থানটা ধরে রাখতে চাই। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে এক নম্বরেই নিজেদের ধরে রাখা।” 
     – নাসির হোসেন (ঢাকা ডায়নামাইটস)
“অবশ্যই আমরা কিছু ভুল করেছি। আমাদের শেষ তিনটি ম্যাচই ভালো যায়নি। অবশ্যই চেষ্টা করব চট্টগ্রাম পর্ব যেন ভালো কাটে। এখানে চারটি ম্যাচ আছে। এখনো সুযোগ আছে আমাদের।’
      – এনামুল হক (চিটাগাং ভাইকিংস)
ব্যাটিং লাইন আপে তাঁর সাথে বিজয়, ডোয়াইন স্মিথ, শোয়েব মালিক, মিলন, জহুরুল এর মতো ব্যাটসম্যান থাকতেও ব্যাটিংটা এখনো মনমতো জ্বলে উঠতে পারেনি। এই নিয়ে তামিম নিজেও অসন্তুষ্ট। গত ম্যাচেই যেমন ১৩ ওভারে ১১৬ রান হবার পরেও বাকি ৭ ওভারে খুব বেশি রান জমা করতে পারেনি ভাইকিংস। উইকেটও পড়েছিলো মাত্র ৩টি। এমন অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে ভাইকিংস-কে ঘরের মাঠে দারুণ কিছু করে দেখাতে হবে। দলের সামর্থ্য নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। কিন্তু, কেউই নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারছেন না। টি-২০ ক্রিকেট মূলত ব্যাটিং নির্ভর। বড়ো স্কোর গড়াই এখানে ম্যাচ জেতার পূর্বশর্ত। চিটাগং এখানেই বারবার ব্যর্থ হয়েছে। ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বেরোতে তামিমে সাথে বিজয়-স্মিথদের সময়োপযোগী ব্যাটিং আবশ্যক। বোলিং এর দিক দিয়ে তাসকিন, আব্দুর রাজ্জাক, মোহাম্মদ নবিরা বল হাতে খারাপ করছেন না।
 
এবার ব্যাট হাতে জ্বলে উঠলেই জয়ের মুখ দেখার সুযোগ হতে পারে চিটাগং-এর। ইয়াসির আলী, জাকির হাসান এর মতো তরুণ তুর্কিদের ওপরের দিকে ব্যাটের সুযোগ দিয়ে দলে কিছুটা পরিবর্তন আনলে পরের দিকের ব্যাটসম্যানদের ওপর চাপ কিছুটা কমতে পারে। ঢাকা পর্বে ভাইকিংস জয় দিয়ে শুরু করলেও পরের ম্যাচগুলোতে চরম ব্যাটিং ব্যর্থতায় হেরে যায়। তাই তো চট্টগ্রাম পর্বের শুরুর দিন স্বাগতিক দলের চেয়ে আর কোনো দলেরই বেশি মরিয়া হয়ে থাকার কথা নয়। তাদের অধিনায়ক তামিম ইকবাল পারফর্ম করছেন, দুই ম্যাচে ফিফটিও করেছেন। কিন্তু দলের অন্যরা তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিতে পারছেন না কিছুতেই। যেজন্য শেষ দুটি ম্যাচে হারার পর বিস্ফোরণও ঘটিয়েছেন এ ওপেনার। ব্যাটসম্যানদের ‘মাথার সমস্যা’ নিয়ে সোচ্চার হওয়া অধিনায়ক এও বলেছেন যে, ‘এভাবে খেলতে থাকলে হারতেই থাকব।’ এই অবস্থায় নিজেদের মাঠে ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন বলেই আশাবাদী এনামুল হক, ‘অবশ্যই আমরা কিছু ভুল করেছি। আমাদের শেষ তিনটি ম্যাচই ভালো যায়নি। অবশ্যই চেষ্টা করব চট্টগ্রাম পর্ব যেন ভালো কাটে। এখানে চারটি ম্যাচ আছে। এখনো সুযোগ আছে আমাদের।’
 
কিন্তু সমস্যা হলো সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটসও আছে দুর্দান্ত ফর্মে। চিটাগং যেখানে ব্যাটিং নিয়ে হাবুডুবু খাচ্ছে, ঢাকা সেখানে আছে মধুর সমস্যায়। এমনিতেই দলটিতে ম্যাচ উইনারের কমতি নেই। বিদেশি কোটায় সাঙ্গাকারা, ব্রাভো, বোপারার মত খেলোয়াড় আছেন। সাকিব আল হাসান, নাসির, মোসাদ্দকের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলা খেলোয়াড় আছেন। সোহরাওয়ার্দি শুভ, ইরফান শুক্কুর, তানভীর হায়দারের মতো ঘরোয়া ক্রিকেটের পরিচিত মুখ এখনো সুযোগই পাননি নিজেকে মেলে ধরার। এই নামগুলোই বলে দিচ্ছে ঢাকা কেমন দল।
 
তবে, মেহেদি মারুফ যেনো এবার একাই সব আলো কেড়ে নেবার পণ করে নেমেছেন। ১ম ম্যাচে ৭৫ করেছেন, সর্বশেষ ম্যাচেও কুমিল্লার বিপক্ষে করেছেন ৬০ রান। দুইবারই হয়েছেন ম্যাচ সেরা। নাসিরও আছেন দুর্দান্ত ফর্মে। মোসাদ্দেক, সাঙ্গাকারা, সানজামুলও নিজেদের দায়িত্বে বেশ ভালো করছেন। দল তাই ভারসাম্য আর পারফর্মের বিবেচনায় খুব ভালো অবস্থানে আছে। তিন নম্বরে ব্যাট করার সুযোগ পেয়েই সাফল্য পাওয়া নাসির তো প্রতিপক্ষকে সুযোগ দেওয়ার কথা ভাবতেই পারেন না। ঢাকার এই স্তম্ভ বলেছেন, “আমরা এক নম্বরে আছি। এই স্থানটা ধরে রাখতে চাই। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে এক নম্বরেই নিজেদের ধরে রাখা।” 
 
এমন এক দলের সামনে পড়তে প্রতিপক্ষের ভয়ই হবে। চিটাগং স্বাগতিক হবার সুবাদে দর্শক সমর্থন আর চেনা কন্ডিশনের ফায়দা তুলে নেবার আশায় আছে, ঢাকাও দুর্দান্ত ফর্মের থাকা এক দল নিয়ে মাঠে নেমে চার-ছক্কার ফুলঝুরি ছোটাতে প্রস্তুত। শুধু চার-ছক্কাই নয়, বল হাতে শহীদ, সেকুগে প্রসন্ন, ব্রাভো আর সাকিবও আছেন দারুণ ছন্দে। শেষ ম্যাচে বড়ো জয়ে ঢাকার আত্মবিশ্বাস চাঙ্গা থাকলেও, সামর্থ্যের বিচারে চিটাগং পিছিয়ে নেই। দীর্ঘদিনের দুই বন্ধু সাকিব আর তামিমের মাঠের লড়াইটা তাই উপভোগ্য হবে।

ঢাকার ডাইনামাইটসঃ মেহেদি মারুফ,  কুমার সাঙ্গাকারা, সাকিব আল হাসান-(অধিনায়ক), মোসাদ্দেক, আলাউদ্দিন বাবু, নাসির হোসেন, ব্রাভো, রভি বোপারা, প্রসন্না, মোহাম্মদ শহীদ, সানজামুল ইসলাম।

চিটাগং ভাইকিংসঃ তাসকিন , আনামুল হক (উইকেটরক্ষক), স্মিথ, তামিম ইকবাল ©, শোয়েব মালিক, আব্দুর রাজ্জাক, এলিওট, মোঃ নবী, জহুরুল এবং নাজমুল মিলন।

আরও পড়ুনঃ বিশ্ব কাঁপানো স্টাম্প ভাঙ্গা ১০ টি শীর্ষ পেস বল !! দেখুন (ভিডিও)

Advertisements

Add Comment

Click here to post a comment