খেলা-ধুলা

আজব হ্যাটট্রিকটা হয়েছিল ৩ ওভার, ২ ইনিংস আর দুই দিনে!

1সব ধরণের খেলাতেই হ্যাটট্রিক করাটা অনেক কঠিন। তবে ক্রিকেটে মনে হয় একটু বেশিই কঠিন। ফুটবলে তিনটা গোল করলেই হয়, কিন্তু এখানে তিন উইকেট নিতে হবে টানা তিন বলে। কঠিনতম এই কাজটাও অনেকে করে দেখিয়েছেন। ৩ হাজার সাত শরও বেশি ওয়ানডেতে মাত্র ৪০ বার হ্যাটট্রিক হয়েছে। দুই হাজারেও বেশি টেস্টে হ্যাটট্রিক হয়েছে ৪২ বার। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে হয়েছে তিনটি হ্যাটট্রিক।

বিরল এই হ্যাটট্রিকের মধ্যে পাওয়ার ধরন দিয়ে সবচেয়ে বিরল সম্ভবত মার্ভ হিউজেরটাই। টানা তিন বলে হ্যাটট্রিক তিনি করেছিলেন ঠিকই, কিন্তু সেটির ব্যাপ্তি ছিল ভিন্ন তিনটি ওভার আর দুটি ইনিংস মিলিয়ে! সেটিও দুই দিন মিলে। এই অদ্ভুতরে হ্যাটট্রিকটার সাক্ষী হয়ে থাকা পার্থ টেস্ট শেষ হয়েছিল আজকের দিনে, ১৯৮৮ সালে।

পার্থে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে নিজের ৩৬তম ওভারের শেষ বলে কার্টলি অ্যামব্রোসকে আউট করেছিলেন হিউজ। নিজের পরের ওভারের প্রথম বলে তিনি প্যাভিলিয়নে ফেরান উইন্ডিজের শেষ ব্যাটসম্যান প্যাট্রিক প্যাটারসনকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ অল আউট হয়ে যায়। যদিও নিজের টানা দুই ওভারে টানা দুই বলে দুই উইকেট নিয়ে হ্যাটট্রিকের সামনে দাঁড়ান হিউজ।

এরপর প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং করে অস্ট্রেলিয়া। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ৪৪৯ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া করে ৩৯৫। ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম বলে ওপেনার গর্ডন গ্রিনিজকে ফেরান হিউজ। ৩ বলে ৩ উইকেট, মানে হ্যাটট্রিক পূর্ণ হয় অস্ট্রেলিয়ার এই পেসারের।

হ্যাটট্রিকটা এতই বিরলভাবে হয়েছিল যে হিউজ তখন বুঝতেই পারেননি। এই অর্জনের কথা পরে তাঁকে জানানো হয়। এ নিয়ে তাই মাঠে আলাদা করে কোনো উদ্‌যাপনও করতে পারেননি। অথচ এটি ছিল ৩০ বছরের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার প্রথম টেস্ট হ্যাটট্রিক!

দ্বিতীয় ইনিংসে ৮৭ রানে ৮ উইকেট নিয়েছিলেন হিউজ। ২১৭ রান দিয়ে ম্যাচে নিয়েছিলেন ১৩ উইকেট। কিন্তু হিউজের জন্য ম্যাচটা আক্ষেপের হয়ে থাকে, এই ম্যাচে যে দল হেরেছিল ১৬৯ রানের বিশাল ব্যবধানে।

ভিডিওঃ পৃথিবীর আজব ভয়ংকর কিছু দুর্ঘটনা!!যা কখনও ভূলবার মতন নয়, দেখে নিন (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment



সর্বশেষ খবর