Advertisements
খেলা-ধুলা

অস্ট্রেলিয়ার আস্থা অলরাউন্ডারদের ওপর

এদিকে চট্টগ্রামে অনুশীলন শিবির গুটিয়ে নেয়ার আগে তিনদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নেমেছেন কাল মুশফিক-তামিমরা। আর ওদিকে অস্ট্রেলিয়া আগামীকাল ডারউইনে শুরু করতে যাচ্ছে এক সপ্তাহের প্রাক-সফর ক্যাম্প। আর্থিক বিষয় নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে ঝামেলা মিটমাট হয়ে যাওয়ার পর বাংলাদেশ সফরের জন্য জোর প্রস্তুতি শুরু করতে যাচ্ছেন অসি ক্রিকেটাররা। ১৮ আগস্ট ঢাকায় এসে পৌঁছবে অস্ট্রেলিয়া টেস্ট দল। এবারের সফরে শুধু দুটি টেস্ট খেলবে তারা। ঢাকায় মিরপুরে প্রথম

টেস্ট শুরু হবে ২৭ আগস্ট। ৪ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামে মাঠে গড়াবে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। অস্ট্রেলিয়া দল বাংলাদেশ সফর শুরু করবে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়ে। ২২-২৩ আগস্ট ফতুল্লায় হওয়ার কথা দু’দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ। তবে ফতুল্লায় জলাবদ্ধতার কারণে এই ম্যাচের ভেন্যু সরিয়ে নেয়া হতে পারে বিকেএসপিতে।

অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ডটকম ওয়েবসাইটে বুধবার অসি অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ আসন্ন বাংলাদেশ সফর নিয়ে বলেছেন, ‘আমরা শেষ টেস্ট সিরিজ খেলেছি ভারতে। বাংলাদেশের কন্ডিশনও প্রায় অভিন্ন।’ তিনি যোগ করেন, ‘ডারউইনে প্রস্তুতি শিবির করাটা ভালোই হয়েছে।

কয়েকজনকে পরখ করে নেয়ার সুযোগ মিলবে। ক্যাম্পে বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় নিজেদের এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে তৈরি করে নিতে পারবে।’

এদিকে বাংলাদেশ সফরের জন্য ১৪ জনের অস্ট্রেলিয়া দলে পাঁচজন স্বীকৃত ব্যাটসম্যানের সঙ্গে রয়েছেন তিনজন অলরাউন্ডার। ব্যাটসম্যানরা হলেন- স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার, ম্যাথিউ রেনশ, পিটার হ্যান্ডসকম্ব ও উসমান খাজা। আর অ্যাশটন অ্যাগার, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল এবং হিলটন কার্টরাইট তিন অলরাউন্ডার। টেস্টে ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে সর্বোচ্চ রান ২৩ বছর বয়সী অ্যাগারের। প্রায় চার বছর আগে নিজের অভিষেক ম্যাচে করেছিলেন ৯৮ রান। বাংলাদেশে তাকে দেখা যেতে পারে অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় স্পিনার হিসেবে। ব্যাট করতে পারেন তিনি আটে। এই বাঁ-হাতির প্রতিভা নিয়ে নিঃসংশয় স্মিথ। তার কথায়, ‘আমি মনে করি, প্রথম ছয়জনের মধ্যে অ্যাগারের ব্যাটিং করার সামর্থ্য রয়েছে।’

আত্মবিশ্বাসী অ্যাগার বলেন, ‘নিজেকে আমি একজন অলরাউন্ডার হিসেবে দেখি। একজন স্পিনার হিসেবে আমাকে নেয়া হয়েছে দলে। তবে আমি ব্যাটে-বলে সমানে ভালো করার সামর্থ্য রাখি।’ ছয়ে ব্যাট করবেন ম্যাক্সওয়েল। গত মার্চে রাঁচিতে ভারতের বিপক্ষে তৃতীয় টেস্টে সেঞ্চুরি করেছিলেন এই অলরাউন্ডার। ভারত সফরে বাদ পড়া উসমান খাজা টপঅর্ডারে ফিরে পেতে পারেন নিজের স্থান। গত মৌসুমে শিল্ডে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী কার্টরাইটের ডেব্যু হয়েছে সিডনিতে গত জানুয়ারিতে। ২০০৬ সালের পর প্রথম এবং সব মিলিয়ে বাংলাদেশে নিজেদের দ্বিতীয় সফরে অস্ট্রেলিয়া অনেকখানি নির্ভর করবে তাদের অলরাউন্ডারদের ওপর।

বাংলাদেশ সফরে অস্ট্রেলিয়া দল

স্টিভ স্মিথ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার (সহ-অধিনায়ক), অ্যাশটন অ্যাগার, জ্যাকসন বার্ড, হিলটন কার্টরাইট, প্যাট কামিন্স, পিটার হ্যান্ডসকম্ব, জশ হ্যাজলউড, উসমান খাজা, নাথান লায়ন, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ম্যাথিউ রেনশ, সুয়েপসন ও ম্যাথিউ ওয়েড।

Advertisements