বিনোদন

অস্কারে যাওয়ার অপেক্ষায় ‘ওয়ান্ডার ওম্যান’!

মার্ভেল কমিকসের জনপ্রিয় চরিত্র ওয়ান্ডার ওম্যান অবলম্বনে নির্মিত ওয়ান্ডার ওম্যান ছবিটি কি অস্কার মনোনয়ন লাভ করতে যাচ্ছে? ছবিটির নির্মাতা সংস্থা ওয়ার্নার ব্রাদার্স অন্তত তাই মনে করে। যদি তাই হয় তা হলে ওয়ান্ডার ওম্যান হবে অস্কার মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রথম চলচ্চিত্র; যেটি কমিক বইয়ের চরিত্র অবলম্বনে নির্মিত।

অস্কার পুরস্কার চালু হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত ৫৩৭টি ছবি এ পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন লাভ করেছে, পুরস্কার জিতেছে ৮৯টি ছবি। কিন্তু এতগুলো ছবির মধ্যে কোনোটিই কমিক বই অবলম্বনে নির্মিত নয়। অল্প কিছু ছবি কেবল সাইন্স ফিকশন ও ফ্যান্টাসিনির্ভর, যেগুলোর অধিকাংশই ২০০৯ সালের পর নির্মিত যখন একাডেমি কর্তৃপক্ষ মনোনয়নপ্রাপ্ত ছবির সর্বোচ্চ সংখ্যা ১০টিতে উন্নিত করে। এরপর গত ৮ বছরে কয়েকটি সাইন্স ফিকশন ও ফ্যান্টাসি ছবি অস্কার মনোনয়ন লাভ করে।

যেমন: ডিসট্রিক্ট নাইন, আভাটর, ইনসেপশন, গ্র্যাভিটি, হার, ম্যাড ম্যাক্স: ফিউরি রোড, অ্যারাইভাল। ১৯৭০ এবং ১৯৮০’র দশকে এ জাতীয় কিছু ছবি কয়েকটি ক্যাটাগরিতে অস্কার পুরস্কারও পায়। যেমন: স্টার ওয়ারস, এমপায়ার স্ট্রাইকস ব্যাক, রেইডার্স অব দ্য লস্ট আর্ক, ই.টি. দ্য এক্সট্রা-টেরেসট্রিয়াল। তবে সেরা ছবির অস্কার পুরস্কার পায় ফ্যান্টাসি ঘরানার একটিমাত্র ছবি সেটা হলো ২০১৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত দ্য লর্ড অব দ্য রিংগস: দ্য রিটার্ন অব দ্য কিং।

তবে প্রযোজক সংস্থাগুলোর কাছে অস্কার জয়টা মুখ্য নয়, কোনোমতে মনোনয়ন লাভ করতে পারলেই হলো। একটা ‘অস্কার মনোনয়ন’ তকমা থাকলে একদিকে যেমন ভালো ব্যবসা করা যাবে, অন্যদিকে ইতিহাসেও ছবিটির নাম লেখা হয়ে যাবে যার পাশে জ্বলজ্বল করবে ‘অস্কার’ শব্দটি।

২০১৭’র অর্ধেকের বেশি সময় পার হয়ে গেছে এবং এর মধ্যে ফ্যান্টাসি ঘরানার বেশ কয়েকটি ছবিও মুক্তি পেয়েছে। এগুলোর মধ্যে তিনটি ছবি অস্কার মনোনয়ন পেতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে। ছবি তিনটি হচ্ছে: গেট আউট, স্পাইডার ম্যান: হোম কামিং এবং ওয়ান্ডার ওম্যান। এর মধ্যে ওয়ান্ডার ওম্যান ছবির অস্কার মনোনয়ন লাভের ব্যাপারে অত্যন্ত আশাবাদী নির্মাতা সংস্থা ওয়ার্নার ব্রাদার্স। অল্প সময়ের মধ্যে বিশাল অঙ্কের অর্থ আয় করে (৭৮১ মিলিয়ন ডলার) বক্স অফিসে রীতিমত হইচই ফেলে দিয়েছে ছবিটি। ছবির এই বিশাল ব্যবসায়িক সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়ে ওয়ার্নার ব্রাদার্স অস্কার মনোনয়ন লাভের জন্য এখন রীতিমত কোমড় বেঁধে ‘লবিং’-এ নেমেছে।

তাদের টার্গেট সেরা ছবি ও সেরা পরিচালকের (প্যাটি জেনকিনস) অস্কার মনোনয়ন বাগানো। এজন্য প্রথম থেকেই তারা ছবির প্রচারণা, মার্কেটিং-এ বিপুল অর্থ ব্যয় করে আসছে। ছবি মুক্তির অল্প দিনের মধ্যেই তারা এর উন্নতমানের ডিভিডিও বাজারে নিয়ে এসেছে। মূল উদ্দেশ্য— দর্শকদের নিজেদের পক্ষে টানা, যাতে অস্কার মনোনয়ন লাভের পথ প্রশস্ত হয়।

তবে মুশকিলটা হলো এক্ষেত্রে দুটো ছবি ওয়ান্ডার ওম্যান-এর পথের কাঁটা হতে পারে, গেট আউট এবং ব্লেড রানার। এর মধ্যে ব্লেড রানার ছবিটা নির্মাণ করেছেন গত বছর অস্কার মনোনয়নপ্রাপ্ত ছবি দ্য অ্যারাইভাল-এর নির্মাতা ডেনিস ভিলেনুভ। আর এ দুটি ছবির কোনোটিই কমিক বই অবলম্বনে নির্মিত নয়। তবে সুনির্মিত, সুঅভিনীত ওয়ান্ডার ওম্যান ছবির ওয়াস্কার মনোনয়ন লাভের ব্যাপারে আশাবাদী অনেকেই (এর মধ্যে ওয়ান্ডার ওম্যান চরিত্রে রূপদানকারী ইসরাইলি সুন্দরী গেল গ্যাডট-ও রয়েছেন)।

ছবিটা নিছক ‘সুপার হিরো মুভি’ নয়, সংলাপ, চিত্রনাট্য, কাহিনী বিন্যাস- সব ক্ষেত্রেই এটি অনেকটা সাধারণ মানুষের কাছাকাছি। তবে এখনই বেশি আশাবাদী হওয়া ঠিক হবে না, কারণ বছর শেষ হতে তো আরো ৫ মাস বাকি। এর মধ্যে ওয়ান্ডার ওম্যান-এর আরো কোনো শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী যে এসে হাজির হবে না তাই বা কে বলতে পারে।