খেলা-ধুলা

অলরাউন্ডাররাই ঢাকা ডায়নামাইটসের শক্তি

ggচ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্য নিয়েই দল গড়েছিল ঢাকা ডিনামাইটস। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) চতুর্থ আসর শুরুর আগেই কাগজে-কলমে সবচেয়ে শক্তিধর দল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছিল দলটি। মাসব্যাপী এ টুর্নামেন্টের শেষান্তে এসে অলরাউন্ডারে ঠাঁসা ঢাকা এখন ট্রফি জয়ের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে। আজ ফাইনালে তাদের প্রতিপক্ষ রাজশাহী কিংস।

ঢাকা লিগ পর্ব শেষে আট জয়ে শীর্ষে ছিল। দলটিতে আছে একঝাঁক অলরাউন্ডার যারা দলটির মূল শক্তি। সর্বশেষ ম্যাচেও একাদশে ছিলেন ছয়জন অলরাউন্ডার। দেশীয় অলরাউন্ডারদের মধ্যে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান, নাসির হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন ও আলাউদ্দিন বাবু আছেন। তবে ম্যাচে ব্যবধান গড়ার ক্ষেত্রে ঢাকার বড় ভরসা দুই ক্যারিবিয়ান ডোয়াইন ব্র্যাভো ও আন্দ্রে রাসেল। প্রথম কোয়ালিফায়ারে ঢাকার জয় এসেছে এদের নৈপুণ্যেই।

গতকাল অনুশীলনে নাসির হোসেনও বলেছেন, ঢাকার শক্তি এসব অলরাউন্ডাররাই। তিনি বলেন, ‘আমাদের দলটা অলরাউন্ডার ভিত্তিক। প্লাস পয়েন্ট হচ্ছে আমাদের দলে অলরাউন্ডার বেশি, বোলিং পরিবর্তন করার সুযোগও বেশি থাকে। ওদের (রাজশাহী) শক্তি কি সেটা আমি বলতে পারব না।’

সাকিব ২১৪ রানের পাশাপাশি ১১ উইকেট নিয়েছেন চলমান বিপিএলে। ৯১ রান করলেও ব্র্যাভো ২০ উইকেট নিয়ে শীর্ষে আছেন বোলারদের তালিকায়। ইনজুরির কারণে অনিয়মিত রাসেল চার ম্যাচে ৮৫ রানের সঙ্গে নিয়েছেন চার উইকেট। প্রথম কোয়ালিফায়ারে ম্যাচজয়ী নৈপুণ্য দেখিয়েছেন তিনি ৪৬ রানের পাশাপাশি তিন উইকেট নিয়ে। ব্যাটিংয়ে ৩৩৯ রান করা মেহেদী মারুফ, ৩৩৪ রান করা কুমার সাঙ্গাকারা, ২২৯ রানের মালিক মোসাদ্দেকের ব্যাটে তাকিয়ে থাকবে ঢাকা।

বিপক্ষ শিবিরের ড্যারেন স্যামির মতো ম্যাচ জেতানো খেলোয়াড় ঢাকা দলেও অনেক আছে। তাই নির্ভার নাসির-সাকিবরা। বিশেষ করে বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ের দিক থেকে ব্র্যাভো, রাসেল, লুইসের অবস্থান এগিয়ে রাখবে ঢাকাকে।

মিরপুরের গ্যালারি আজ সাকিব বাহিনীর সমর্থনে গলা ফাটাবে সেটা খুবই অনুমিত। নাসির বলছেন, সেটি চাপও হয়ে যেতে পারে। তিনি বলেন, ‘সমর্থন বেশি পেলে চাপও কাজ করবে। এটার ইতিবাচক দিক আছে, নেতিবাচক দিকও আছে। সব যদি ঢাকার সাপোর্টার হয় তাহলে চাপও কাজ করবে।’

গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামের বিসিবি একাডেমি মাঠে অনুশীলন করেছে ঢাকা। বিপিএলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার নেশায় বিভোর সাকিবের দল। ফাইনাল জয়ে দলের ১১ জনের অবদানও চাইছে দলটি। লিগ পর্বে রাজশাহীর কাছে দুবার হারার স্মৃতি ভুলে ট্রফি জেতার দিকেই বেশি মনোযোগী নাসির-মোসাদ্দেকরা।

নাসির বলেন, ‘অবশ্যই ফাইনাল ম্যাচ বিগ ম্যাচ। চাপ আমাদেরও থাকবে তাদেরও থাকবে। আমার মনে হয় না এমন কোনো চাপ আছে যে, আমরা ওদের কাছে দুইটা ম্যাচ হেরেছি। এমন কোনো কিছুই না। কাজ যেটা হচ্ছে সেটা মাঠে গিয়ে পারফর্ম করা। ইনশাআল্লাহ চ্যাম্পিয়ন হওয়া।’ তবে ফাইনালে নিজের দলকে এগিয়ে রাখতে চাইছেন না নাসির। তিনি বলেন, ‘আসলে কাগজে-কলমে বলে কথা না। আমাদেরকে মাঠে খেলতে হবে। এটা হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ। রাজশাহী খারাপ দল না, ভালো দল কারণ তারা ভালো খেলছে। আমার মনে হয় ফাইনালে যারা কম ভুল করবে তাদের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ বেশি থাকবে।

ভিডিওঃ রাখে আল্লাহ মারে কে! দেখুন হাতির আক্রমনে লোকটির অবস্থা,অতপর যা হল তা মানুষের কল্পনার ও বাহিরে (ভিডিও)

Add Comment

Click here to post a comment