বিনোদন

‘অনেকেই দিন শেষে শোবিজের মেয়েটাকেই বাজে বলে’

পাহাড়ের বুক ছুঁয়ে যায় আকাশের নীল মেঘগুলো। মেঘের খেলা চলে সবুজ পাহাড়ের ভাঁজে ভাঁজে। চারদিকে শুধু চোখ জুড়ানো পাহাড়! আর দূর থেকে দেখলে মনে হয়, হাজার হাজার ফুট উঁচু পাহাড়গুলো যেন নদীর ঢেউয়ের মত। প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য যাকে করেছে আরও নয়নাভিরাম। সুন্দরের সমারোহে প্রকৃতির এক অপরূপ লীলাভূমি-খাগড়াছড়ি।

আর সে জায়গাটিকে ঘিরে প্রকৃতির অপার স্নেহ ভর করা তার মনের এ ভাবনাগুলোর কথাই জানান গত ১২ অক্টোবর একটি জনপ্রিয় অনলাইন নিউজের সঙ্গে আলাপকালে, মডেল অভিনেত্রী ও সদ্য নায়িকার খাতায় নাম লেখানো অর্চিতা স্পর্শিয়া। সেখানে অনন্য মামুনের পরিচালনায় ‘বন্ধন’ নামে একটি সিনেমার শুটিংয়ে অবস্থান করছেন তিনি। আর ব্যক্তি জীবনের নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে শিল্পের টানে স্পর্শিয়া এগিয়ে গিয়েছেন জীবনের পথে।

শোবিজে সাত বছর ধরে কাজ দিয়েই টিকে আছেন। সুনামও কুড়িয়েছেন। নিজের আলাদা অবস্থান তৈরি করেছেন। এরপর পারিবারিক জীবন জড়িয়েছেন। তারপর বিচ্ছেদেও জড়িয়েছেন। গত ২১ আগস্ট রাজধানীর মোহাম্মদপুরের কাজী অফিসে স্বামী নির্মাতা রাফসান আহসানের সঙ্গে আপনার ডিভোর্সের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে। তার কাছে প্রশ্ন ছিল-‘বিচ্ছেদে জড়ানোর পর নিজের ভিতর থেকে কোনও বদল অনুভব করছেন, কিনা’?

‘তবে তারিখটা কিন্তু ২১ আগস্ট না, ১৭, ১৮ হবে। আমার মনে আছে তখন আমার কোরবানীর ঈদের নাটক ‘শ্যাওলা’র শুটিং চলে। এরপর থেকে সে সময়গুলোকে অতিক্রম করার চেষ্টা করেছি। বিচ্ছেদে জড়িয়েছি। তবে এসব ঘটনার পর থেকে আমি ভাল আছি। শান্তিতে আছি এবং অনেক কিছু শিখেছি এই ধাক্কা থেকে। কিন্তু এই পুরানো গল্প নিয়ে এখন যখন প্রশ্ন আসে সামনে তখন সেই আবার পুরানো জায়গায় ফিরে যাই। সবচেয়ে খারাপ লাগে তখন যখনই দেখি, কারণ না জেনে মুখ ফুটে কিছু না বলার কারণেই সমাজের অনেকেই দিন শেষে শোবিজের মেয়েটাকেই বাজে বলে।’ বললেন স্পর্শিয়া।

২০১৫ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর নির্মাতা রাফসান আহসানের সঙ্গে বাগদান সম্পন্ন হয় স্পর্শিয়ার। আর সে বছরেরই ১ অক্টোবর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। একটি অনলাইন শপের ভিডিওচিত্র নির্মাণের মাধ্যমেই সখ্যতা গড়ে উঠেছিলো রাফসান এবং স্পর্শিয়ার। আর ধীরে ধীরে সেটি রূপ নেয় বন্ধুত্ব, এরপর প্রেম।

তারপর পরিণয়ে। আর এই যে বিচ্ছেদ! একটা কষ্টবোধ তো থাকেই। সেটি কীভাবে নাড়া দেয় এখন আপনাকে? তিনি বলেন,‘এখন আর কোন কিছুই আমাকে কোন ভাবে নাড়া দেয় না। আর আমি বলব আমি ওই বিষয়গুলো ভুলার চেষ্টা করছি, আমাকে ভুলতে দেন। বিষয়টা আমার জন্য কষ্টের।’

স্পর্শিয়া ছোট পর্দায় অভিনয় করে সুনাম কুড়ালেও বিকল্পধারার ছবিতে অভিনয় করলেও মূলধারার সিনেমায় অভিনয়ের জন্য প্রস্তুত ছিলেন না। এরপর যখন নিজের প্রতি খানিকটা আস্থা তৈরি হয়েছে। তখনই সাহস করে বাণিজ্যিক ছবিতে নাম লেখান তিনি। আর এ বছরের শুরুতেই চুক্তিবদ্ধ হন ‘বন্ধন’ চলচ্চিত্রে।

পাঁচ বন্ধুর জীবন নিয়ে বন্ধন ছবির কাহিনি। চিত্রনাট্য লেখার পাশাপাশি ছবিটি পরিচালনা করছেন অনন্য মামুন। এর প্রথম ধাপের শুটিংও হয়েছে নেপালের নাগরকোটে। তারপর ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে। আর এখন চলছে খাগড়াছড়িতে। সেখান থেকে সাজেক যাবেন তিনি। ছবি নিয়ে কথা প্রসঙ্গে প্রিয়.কম’কে সে কথা জানালেন।

শুটিংয়ের প্রসঙ্গে স্পর্শিয়া বলেন,‘যেখানে শুটিং করছি জায়গাটা অনেক সুন্দর। আসলে আমাদের দেশটাই অনেক সুন্দর। আমাদের এ ফিল্মটার অর্ধেক অংশের শুটিং নেপালে হয়েছে। আর এখানে এসে মনে হচ্ছে নেপালে শুধু শুধু গিয়েছি। খাগড়াছড়ি, বান্দরবন নেপালের চাইতেও অনেক সুন্দর। কিন্তু কষ্টের বিষয় হচ্ছে, মশা ও প্রচন্ড সূর্যের তাপ। না হলে সব ঠিকঠাক। এছাড়া প্রতিদিন ভোর চারটায় কলটাইম থাকে। শেষ হয় রাত ১২টায়। শুধু তিন ঘণ্টা ঘুমাই! ভাল কিছু হচ্ছে বলেই এ ধরনের কষ্টকে কোন কষ্ট মনে হচ্ছে না।’

স্পর্শিয়া তাঁর অভিনয় জীবন শুরু করেন ‘প্যারাসুট’ তেলের বিজ্ঞাপনের অভিনয় দিয়ে। ‘বন্ধু তিন দিন’ শিরোনামের সেই বিজ্ঞাপনটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল। আর এয়ারটেল পরিচালিত ‘ইম্পসিবল ৫’ এ অভিনয় করে ২০১৩ সালে অভিনেত্রী হিসেবে জনপ্রিয়তা লাভ করেন। এছাড়া বিটিভি তে বিবিসি এর উজান গাঙ্গের নাইয়া’তে অভিনয় করে তাঁর কর্মজীবনে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেন।