স্বাস্থ্য

অঙ্কুরিত অথবা সবুজ হয়ে যাওয়া আলু ক্ষতিকারক?

প্রায় প্রতিদিনই আমাদের খাদ্য তালিকায় থাকে আলু। আলু যেমন সবজি তেমনি বিভিন্ন তরকারি, মাছ, মাংসের সঙ্গে এটি ব্যবহার করা হয়। আলু পুষ্টির দিক দিয়ে ভাত ও গমের সাথে তুল্য। এছাড়া খাদ্য হিসাবে আলু সহজেই হজম হয়। আলুতে যথেষ্ট পরিমাণে খাদ্য শক্তি রয়েছে। তাছাড়া ভিটামিন ও খনিজ লবণও পাওয়া যায়।

আমাদের দেশে সবজি হিসেবে ব্যবহার হলেও আয়ারল্যান্ডের মতো কিছু কিছু দেশে এটি আবার প্রধান খাদ্য হিসেবেও ব্যবহার হয়ে থাকে। কিন্তু এই আলুই কখনো কখনো মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

১৯৭৮ সালের এক শরতে দক্ষিণ লন্ডনের প্রায় ৭৮ জন স্কুলছাত্র সেদ্ধ আলু খাওয়ার পরই ডায়রিয়া, বমি এবং এরকম কিছু উপসর্গ দ্বারা আক্রান্ত হয়। পরবর্তীতে শারিরীকভাবে সুস্থ্য হওয়ার পরও অনেকে বেশ কিছুদিনের জন্য ভ্রম দেখার পাশাপাশি মানসিক উৎকণ্ঠায় দিন পার করেছে।

ঘটনার পরপরই এ নিয়ে তদন্ত কমিটিতে জানা যায়, তারা যে আলুগুলো খেয়েছে সেগুলো ৫ মাসের বেশি সময় ধরে স্কুলের গুদামে ছিল। সেগুলো থেকে কিছু নমুনা নিয়ে পরীক্ষা করে দেখা যায় তারা বস্তাবন্দী অঙ্কুরিত ও সবুজ আলুর মধ্যে থাকা ‘সোলানিন’ নামক এক ধরনের বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে বলে।

সোলানিন নামের বিষাক্ত পদার্থটি খুব তাড়াতাড়ি স্নায়ুতন্ত্রকে আক্রান্ত করার পাশাপাশি দেহের কোষেও প্রভাব ফেলতে পারে।

সাধারণত সোলানিন নামক বিষটি অঙ্কুরিত আলু কিংবা সবুজ হয়ে যাওয়া সংরক্ষিত আলুর মধ্যে তৈরি হয়। ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নাল স্টোরির বরাত দিয়ে বিবিসি জানায় এরকম ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অনেক গল্প রয়েছে। সেখানে কিছু ক্ষেত্রে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মৃত্যুও ঘটেছিল। তাদের মধ্যে অপুষ্টিতে ভুগতে থাকা কিছু লোকও ছিল যারা সঠিক সময়ে চিকিৎসা নিতে পারেনি।

তবে আলু মৌসুমের শুরুতে ক্ষেতের মধ্যে যে সবুজ আলু দেখতে পাওয়া যায় সে আলু সবুজ হলেও ঝুঁকিমুক্ত। কারণ সেগুলো ‘সোলানিন’ এর কারণে নয়, মাটির বাইরে থাকার কারণে সরাসরি সূর্যালোকের সংস্পর্শ পায় ও ক্লোরোফিলযুক্ত হয়। ফলে তা দেখতে সবুজ হলেও ক্ষতিকর নয়। কিন্তু সংরক্ষিত আলু সবুজ হলে তা মৃত্যুর কারণ হতে পারে বলে বলছেন গবেষকরা।